বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

পুরস্কৃত মোদি, প্রতিবাদে চাকরি ছাড়লেন গেটস্ ফাউন্ডেশনের কর্মী


স্বচ্ছ ভারত অভিযানের জন্য সম্প্রতি গোলকিপার গ্লোবাল গোলস্ পুরস্কার পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিল গেটস্-এর সংস্থা থেকে এই পুরস্কার দেওয়া হয় । কিন্তু মোদিকে এই পুরস্কার দেওয়ার প্রতিবাদে চাকরি ছাড়লেও ওই সংস্থার এক কর্মী। ৪২বছরের ওই কর্মী সাবা হামিদ একজন কাশ্মীরি। তিনি বহু দিন ধরে কমিউনিকেশ বিশেষজ্ঞ হিসাবে তিনি বিল ও ম্যালিন্ডা গেটস্ ফাউডেশনের কর্মরত ছিলেন।
সম্প্রতি ভারতীয় সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারার বাতিল করেছে মোদী সরকার। তাতে কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্য মর্যাদা খর্ব করা হয়েছে। সাবা বলেছেন, মোদি এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে বিশেষত কাশ্মীরের 'দুর্বলদের উপর অপরিবর্তনীয় ক্ষতি' চাপিয়েছেন।
তাই, দ্য গেটস্ ফাউন্ডেশন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে যে বার্ষিক পুরস্কার দিয়েছে, আমি এটা ভুল সিদ্ধান্ত হিসাবে মনে করি। আমার মতে, যে কোনও সংস্থা যা দুর্বলদের জীবন উন্নতি করতে এবং বিশ্বে বৈষম্য হ্রাস করতে কাজ করে, তাদের এমন ব্যক্তিকে সম্মান করা উচিত নয়, যার সিদ্ধান্তের ফলে, মজলুমদের ওপর অপরিবর্তনীয় ক্ষতি হয় এবং যার রাজত্ব ইতিমধ্যে দেশে বহুগুণে বৈষম্য বৃদ্ধি পেয়েছে।
হামিদ এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বিষয়টিকে নিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অসন্তোষ প্রকাশ করে ছিলেন। কিন্তু তাতে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। তিনি অনুভব করেন, বিষয়টি পরবর্তী হবে না, তাই দ্রুত চাকরি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন। সাবা জানিয়েছেন, একজন কাশ্মীরি হওয়ায় তার এই সিদ্ধান্তকে আংশিকভাবে প্রভাবিত করেছিল কিন্তু 'এটি একমাত্র কারণ ছিল না।' তিনি বলেন, কাশ্মীরের ৮০লক্ষ মানুষ এখন ৫০দিন ধরে অঘোষিত কারফিউয়ের অধীনে রয়েছে, এমনকি চিকিৎসা ব্যবস্থাতে স্বল্প প্রবেশধিকার পাচ্ছে এবং উপত্যকায় একটি মানবিক সংকট চলছে। মোদি নেতৃত্বাধীন সরকার কেবল এই সংকটকেই বাস্তবায়িত করেনি, তাদের অসত্যতা গণমাধ্যমের একটি বড় অংশকে আসল ঘটনার বর্ণনা করা থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করেছে। তাই মোদিকে পুরস্কার দেওয়ার আগে আরও একবার বিষয়টি নিয়ে বিবেচনা করা উচিত ছিল।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only