মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

প্রতি ৪০ সেকেন্ড আত্মঘাতী হন একজন: হু



আত্মহত্যা নিয়ে চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু। সেখানে বলা হয়েছে, বিশ্ব জুড়ে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন আত্মঘাতী হচ্ছে।ফলে যুদ্ধে নিহত হওয়ার চেয়ে বেশি মানুষ আত্মঘাতী হয়ে মারা যাচ্ছে। গলায় ফাঁস দিয়ে, কীটনাশক খেয়ে বা নিজের ওপর গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হওয়া সবচেয়ে প্রচলিত পদ্ধতি বলে উল্লেখ করা হয়েছে।আত্মহত্যার প্রবণতা হ্রাসে 'আত্মহত্যা প্রতিরোধ পরিকল্পনা' গ্রহণ করার জন্য সরকারগুলির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে হু।
রিপোর্ট বলা হয়েছে, আত্মহত্যা, সারা বিশ্ব জুড়ে একটি জনস্বাস্থ্য ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে, 'সব বয়সী ও লিঙ্গে মানুষে মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বাড়ছে।'

এতে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী সড়ক দুর্ঘটনার পর আত্মহত্যাই ১৫ থেকে ২৯ বছর বয়সী মৃত্যুর দ্বিতীয় প্রধান কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ১৫ থেকে ১৯ বছর বয়সী কিশোরীদের মধ্যে আত্মহত্যা বেড়ে চলার কারণ হল, অযাছিতভাবে গর্ভবর্তী হয়ে পড়া। কিশোরদের মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রতিহিংসাই একমাত্র প্রধান কারণ।জানা গিয়েছে প্রতি বছর আট লক্ষ মানুষ আত্মঘাতী হচ্ছে। এই সংখ্যাটি ম্যালেরিয়া অথবা স্তন ক্যানসার অথবা যুদ্ধে মারা যাওয়া মানুষের সংখ্যার চেয়ে বেশি।
২০১০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী আত্মহত্যার গড় হার ৯.৮ শতাংশ হ্রাস পেলেও একই সময় আমেরিকা ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলিতে নারী-পুরুষের আত্মহত্যার হার প্রায় কাছাকাছি হলেও ধনী দেশগুলি নারীদের চেয়ে পুরুষরা প্রায় তিন গুণ আত্মঘাতী প্রবণ।

হু-এর মহাপরিচালক টেডরোস আধানোম গেব্রিয়েসুস বলেছেন 'আত্মহত্যা প্রতিরোধযোগ্য'। জাতীয় স্বাস্থ্য ও শিক্ষা কর্মসূচির মাধ্যমে আত্মহত্যা প্রতিরোধ করার জন্য সকল দেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।কীটনাশক বিক্রির ওপর কড়াকরি বিধি নিষেধ এনে আত্মঘাতী হওয়ার পথ অবরুদ্ধ করা যাবে বলে তিনি আসাবাদী। এ প্রসঙ্গে তিনি শ্রীলঙ্কার কথা উল্লেখ করেছে, কীটনাশকের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করে ১৯৯৫ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৯৩ হাজার জীবন রক্ষা করতে পারা গিয়েছে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only