রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

একদা চা বিক্রেতাই এখন ওড়িশার গরিব পড়ুয়াদের ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন


বিহারের সুপার ৩০-র কথা অনেকেরই মনে আছে। আনন্দকুমারের হাতে গড়া এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের নিট– ইউপিএসসি প্রভৃতির প্রবেশিকা পরীক্ষার প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। সেই সুপার ৩০-এর আদলে গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে সর্বভারতীয় ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষা ‘নিট’-এর প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালু করেন ওড়িশার অজয় বাহাদুর সিং। ৪৭ বছর বয়সি অজয় বাহাদুরের সেই প্রয়াস এবার সাফল্যর মুখ দেখেছে। ২০১৮-১৯ ব্যাচের ১৪ জন পড়ুয়া নিট-এ সাফল্য পেয়েছে।

একদা চা-বিক্রি করে দিনযাপন করা অজয় বাহাদুরের স্বপ্ন তাঁর জীবনে সঞ্চয় করা অর্থ দিয়ে ওড়িশার গরিব ছেলেমেয়েদেরকে সর্বভারতীয় ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষায় সফল করে তোলা। সেই কাজে ক্রমশ সাফল্য পাচ্ছেন তিনি। শুধু এ বছর নয় গতবছরেও তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায়  ২০ জন সফল হয়েছে নিট-এ। অজয় বাহাদুরের এই অনন্য প্রচেষ্টার পিছনে রয়েছে এক কাহিনি। অজয় হতে চেয়েছিলেন ডাক্তার। কিন্তু অর্থনৈতিক দুর্বলতার কারণে তাঁর সেই স্বপ্ন সফল হয়নি। কিন্তু তাতে কী? তাঁর মতো অন্য কোনও গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীর যেন ওই অবস্থার শিকার হতে না হয়– সেই লক্ষ্যেই তিনি ২০১৭ সালে শুরু করেন ‘জিন্দেগি ফাউন্ডেশন’। 

এ ব্যাপারে অজয় বাহাদুর বলেন, তিনি যখন এমবিবিএস-এর জন্য তৈরি হচ্ছিলেন, তখন তাঁর পিতা খুবই অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন আমাদের যা কিছু ছিল সবই বেচে দিতে হয়েছিল সে সময়। তারপর তাঁকে চা-বিক্রি করে জীবনধারণ করতে হয়েছিল। তারপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, তাঁর মতো ছাত্রছাত্রীদেরকে সাহায্য করে যাবেন। জীবনে যা কিছু সঞ্চয় করবেন, তা দিয়ে গরিব মেধাবী ছেলেমেয়েদের থাকা– খাওয়া ও অন্যান্য খরচ বহন করবেন। সেটাই করে চলেছেন।
এ বছর যে ১৯ জন তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে ডাক্তারি পড়ার সুযোগ পেয়েছে তার মধ্যে একজন হল রেখা রানি। রেখা জানায়, তাঁর বাবা এক দিনমজুর। দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সরকারি স্কুলে পড়াশোনা। স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়া। কিন্তু তাঁর পরিবারের পক্ষে ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষার প্রশিক্ষণ নেওয়ার খরচ জোগানো সম্ভব ছিল না। তখন সে শোনে জিন্দেগি ফাউন্ডেশনের কথা। সেখান থেকে দিনরাত কঠোর অনুশীলন করে সফল হওয়ায় মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হবে।

শুধু গরিব পড়ুয়াদের বিনামূল্যে ডাক্তারি প্রশিক্ষণ দিয়েই ক্ষান্ত হতে চান না অজয় বাহাদুর। তাঁর কর্মভূমি ওড়িশায় হলেও জন্ম ঝাড়খণ্ডের দেওঘর। তাই ওড়িশার মতো গরিব ছেলেমেয়েদের জন্য নতুন প্রজেক্ট শুরু করতে চান তাঁর জন্মভূমি দেওঘরে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only