বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

স্নানের দৃশ্য ভিডিয়ো করে ব্ল্যাকমেল করেন চিন্ময়ানন্দ

প্রভাবশালী বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্বামী চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন উত্তরপ্রদেশের নির্যাতিতা আইনি ছাত্রী। ২৩ বছরের ওই ছাত্রী দিল্লি পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে যে জবানবন্দি দিয়েছেন সেখানে চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন। রাজ্যে একাধিক আশ্রম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালান চিন্ময়ানন্দ। সূত্রের খবর– নিজের জবানবন্দিতে ওই ছাত্রী অভিযোগ করেছেন– এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তাঁকে ধর্ষণ ও যৌন হেনস্থা করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বিশেষ তদন্তকারী টিমের (সিট) কাছে দেওয়া জবানবন্দিতেও এই একই অভিযোগ করেন নির্যাতিতা ছাত্রী। ওই ছাত্রীকে প্রায় ১৫ ঘণ্টা জেরা করে সিট। ছাত্রীর দেওয়া ভিডিয়োটিও খতিয়ে দেখে সিট। নিজের ১২ পাতার অভিযোগপত্রে ওই আইনের ছাত্রী গোটা ঘটনা বিস্তারিতভাবে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন– প্রথমবার চিন্ময়ানন্দের (৭৩) সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ গত বছর জুন মাসে। শাহজাহানপুরে চিন্ময়ানন্দের যে ল’ কলেজ রয়েছে সেখানে ভর্তি হওয়ার জন্য তিনি তাঁর কাছে গিয়েছিলেন। সেইসময় চিন্ময়ানন্দ তাঁর ফোন নম্বর নেন এবং কলেজে ভর্তির ব্যবস্থা করে দেন। হস্টেলেও থাকার ব্যবস্থা করে দেন। পরে চিন্ময়ানন্দ তাঁকে ফোনে ডাকেন এবং কলেজের গ্রন্থাগারে ৫ হাজার টাকার বেতনে চাকরির প্রস্তাবও দেন। ছাত্রীটি জানিয়েছেন– তিনি গরিব পরিবারের হওয়ায় চাকরিটি নেন এবং কলেজে ক্লাসের পাশাপাশি গ্রন্থাগারের কাজও সামলাতে থাকেন। এভাবেই কয়েক মাস কেটে যাওয়ার পর নভেম্বর মাসে তাঁকে নিজের আশ্রমে আসতে বলেন চিন্ময়ানন্দ। সেখানে গেলে তাঁকে একটি ভিডিয়ো দেখান চিন্ময়ানন্দ। ছাত্রীটির দাবি– হস্টেলে তাঁর স্নানের দৃশ্য গোপনে ভিডিয়ো করা হয়েছিল। সেই ভিডিয়োটি দেখিয়ে চিন্ময়ানন্দ তাঁকে ব্লাকমেল করতে শুরু করেন। ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেওয়ার ভয় দেখান। এরপরই ভয় দেখিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করেন চিন্ময়ানন্দ। ছাত্রীটির অভিযোগ– সেই ধর্ষণের ঘটনাও চিন্ময়ানন্দ ভিডিয়ো করে রাখেন তাঁকে ব্লাকমেল করার জন্য। তারপর একাধিকবার চিন্ময়ানন্দর লোকরা বন্দুকের নল ঠেকিয়ে তাঁকে চিন্ময়ানন্দর কাছে নিয়ে আসত। চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত এই অত্যাচার চলতে থাকে। সহ্য করতে না পেরে তিনি চিন্ময়ানন্দর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর সিদ্ধান্ত নেন। সেইমতো প্রমাণ হিসেবে– তাঁর উপর ওই বিজেপি নেতার অত্যাচারের ভিডিয়ো তিনি মোবাইলে রেকর্ড করেন। তারপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে প্রাণভয়ে কলেজ ছেড়ে পালিয়ে যান। উল্লেখ্য– প্রভাবশালী এই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি পুলিশ। এমনকী তাঁকে জেরা পর্যন্ত করা হয়নি। তাঁর বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোনও মামলাও দায়ের হয়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only