বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

নরওয়েতে দৈনিক ৮ জন ইসলাম গ্রহণ করেন

মুসলিমরা মদ্যপ নন। তাঁরা স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক বা পরকীয়া প্রেমে সচরাচর জড়িত হন না। তাই অবাধ যৌনাচারে লিপ্ত হন না। ফলে মুসলিম পুরুষকে বিয়ে করলে দাম্পত্য জীবন বেশি সুখি হয়।
স্ক্যান্ডেনেভিয়ার দেশ নরওয়েতে প্রতিদিন গড়ে ৮ জন অমুসলিম ইসলাম গ্রহণ করছেন। এতে যারপরনাই ক্ষুব্ধ কট্টর বিদ্বেষী গোষ্ঠীগুলো। তারা ধর্মান্তরণ নিষিদ্ধের দাবিতে জোরদার আন্দোলন চালাচ্ছে। তবুও ইসলাম গ্রহণের প্রবণতা বেড়েই চলেছে। এ খবর জানিয়ে দৈনিক ভারডেন্স গং লিখেছে– প্রতিবাদ-বিক্ষোভ সত্ত্বেও ইসলাম গ্রহণের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে নরওয়েতে। দেশটির প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী অসলো ইউনিভার্সিটির কালচারাল স্টাডিজ অ্যান্ড ওরিয়েন্টাল ল্যাঙ্গুয়েজের অধ্যাপক সোলভা নাবিলা স্যাক্সেলিন বলেন– গত কয়েক বছরে তিন হাজারেরও বেশি বিভিন্ন ধর্মের মানুষ ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। ১৯৯০-এর পর এই হার ৬ গুণ বেশি। কারণ হিসেবে তিনি বলেন– নরওয়ের নারীরা সুখ-শান্তির লক্ষ্যেই মূলত মুসলিম পুরুষদেরকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেশি পছন্দ করেন। এই প্রবণতা থেকেই নওমুসলিমের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। কিন্তু স্বদেশিদের বাদ দিয়ে মেয়েরা কেন ভিনদেশ থেকে আগত মুসলিম পুরুষদেরকে স্বামী হিসেবে বেশি পছন্দ করছে। জবাবে অধ্যাপক স্যাক্সেলিন বলেন– মুসলিমরা মদ্যপ নন। তাঁরা স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক বা পরকীয়া প্রেমে সচরাচর জড়িত হন না। তাই অবাধ যৌনাচারে লিপ্ত হন না। ফলে মুসলিম পুরুষকে বিয়ে করলে দাম্পত্য জীবন বেশি সুখি হয়। উল্লেখ্য– ১৯৬০-এর দশক থেকে দেশটিতে মুসলিমদের আগমণ শুরু হয়। ১৯৭৪ সালে রাজধানী অসলো শহরে প্রথম মসজিদ নির্মিত হয়। দেশটির জনসংখ্যা প্রায় ৬ শতাংশ মুসলিম। সংখ্যায় প্রায় পৌনে দু লক্ষ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only