শুক্রবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

নিম্নমানের খাবারের অভিযোগে বিক্ষোভ বিশ্বভারতীর দুই আবাসিক সদনে

দেবশ্রী মজুমদার
বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিমা ও আনন্দ সদনে নিম্নমানের খাবার দেওয়ার অভিযোগে বিক্ষোভ আবাসিক পড়ুয়াদের। অভিযোগ, দীর্ঘ দিন ধরে অভিযোগ জানিয়ে কোনো লাভ হয়নি। প্রোক্টর অফিসে চিঠি লিখেও কোনো লাভ হয়নি। এই নিম্নমানের খাবার খেয়ে বেশির ভাগ ছাত্রীদের পেটের অসুখে ভুগতে হচ্ছে।  শুক্রবার  সসকালে ব্রেকফাস্ট খাবার পর,  দুপুরের আহারের জন্য রান্না সরঞ্জামের দেখে বুঝতে পারে অন্যান্য দিনের মতো ফের  নিম্ন মানের খাবার খেতে হবে।  সকল ছাত্রীরা একত্রিত হয়ে ওই খাবারের সামগ্রী নামিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে । সবনম ও মেঘনা রায় নামে এক ছাত্রী বলেন,  আমাদের অভিযোগ দিন দিন ক্যাম্পাসে  থাকার ও সমস্ত খরচ বাড়ছে, কিন্তু খাবারের মান নিম্ন মানের থেকে যাচ্ছে । সেই প্রতিবাদে আজ সকল ছাত্রীরা একত্রিত হয়ে  বিক্ষোভ কর্মসূচি নিতে বাধ্য হয়েছে । অনেক সময় ছাত্রছাত্রীদের সাথে দুর্ব্যবহার করা হয়। আমরা কিচেন ম্যানেজার জয় বড়ুয়াকে সরাতে চাই।  এদিকে পড়ুয়াদের আন্দোলনের জেরে ক্যান্টিনে রান্না বন্ধ। সব পড়ুয়াদের খাওয়া বন্ধ। দুপুরের দিকে আন্দোলনরত পড়ুয়াদের সাথে কথা বলতে যান ছাত্র পরিচালক শঙ্কর মজুমদার। তিনি তাঁদের বোঝাতে চেষ্টা করেন, পড়ুয়াদের সাত দিন করে দায়িত্ব নিতে হবে ক্যান্টিন চালানোর জন্য। প্রক্টরের পক্ষে লোক দেওয়া সম্ভব নয় এই কিচেন ম্যানেজমেন্ট করার জন্য। লোক নেই। অর্থ নেই। এ ব্যাপারে বড় জোর বর্তমান উপাচার্যের সাথে আলোচনা করা যেতে পারে।  তিনি বলেন, আবাসিকগুলো চালানো মুশকিল। বিভাগীয় মন্ত্রকের নির্দেশে চলতে হয়। তাদের মাইনে আঁটকে যাবে কিনা সন্দেহ। যদিও সেই সময় সাংবাদিকদের সামনে কোনো মন্তব্য তিনি করতে চাননি। এদিন সন্ধ্যায় ফোনে ধরা হলে বিশ্বভারতী ছাত্র পরিচালক শঙ্কর মজুমদার জানান, দুপুরের দিকে মিটিং হয়েছে। এখনই  মিটিংয়ে যাচ্ছি। নিশ্চয় সুরাহা হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only