শুক্রবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

বাবরি ধ্বংস মামলায় জামিন পেলেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং

২ লক্ষ টাকা ব্যক্তিগত মুচলেকা দিয়ে জামিন নিলেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং। এতদিন রাজ্যপালের পদে আসীন থাকার জন্য সংবিধানের নির্দিষ্ট ধারা অনুযায়ী সিবিআই বিশেষ আদালত তাঁকে সমন পাঠাতে পারছিল না। কিন্তু রাজ্যপালের দায়িত্ব থেকে অবসর নেওয়ার পরই বাবরি ধ্বংস মামলায় কল্যাণ সিংকে সমন পাঠানো হয়। এই সমন নিয়ে মিডিয়ার সামনে তিনি বলেছিলেন– যা বলার আদালতে বলব। সেই সমন পেয়ে শুক্রবার লখনউ-এর সিবিআই বিশেষ আদালতে হাজির হন কল্যাণ সিং। হাজিরা দেওয়ার সময় সিবিআই তাঁকে হেফাজতে নিয়ে নেয়। কল্যাণ সিং-এর আইনজীবী তাঁর স্বাস্থ্য খারাপের কথা জানিয়ে জামিনের আবেদন জানালে বিশেষ আদালতের বিচারক ২ লক্ষ টাকা বন্ডে জামিনের নির্দেশ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য– ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংস করে কট্টর হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠীরা। ‘করসেবা’ নামে ধর্মীয় আচার পালনের জন্য তারা জড়ো হয়েছিল অযোধ্যায়। সে সময় কল্যাণ সিং মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন উত্তরপ্রদেশে। তিনি সংসদকে আশ্বাস দিয়েছিলেন– বাবরি মসজিদ রক্ষা করার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তাঁর আশ্বাস পেয়ে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী কংগ্রেসের নরসিমা রাও সেনাবাহিনীকে বাবরি মসজিদ বাঁচাতে দায়িত্ব দিতে চাননি। সকাল থেকে সন্ধে পর্যন্ত ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয় মসজিদের তিনটি গম্বুজ। বাবরি মসজিদ ভাঙার অভিযোগে কল্যাণ সিংয়ের সঙ্গে অভিযুক্ত রয়েছেন লালকৃষ্ণ আদবানি– বিনয় কাটিহার– উমা ভারতী– মুরলী মনোহর যোশী সহ একাধিক বিজেপি ও বজরং দলনেতা। অপরাধের ষড়যন্ত্র– বেআইনি সমাবেশ– সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়ানো প্রভৃতি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআই বিশেষ আদালতে এই মামলা চলছে। আদবানি যোশী– উমা ভারতীরা এই মামলায় জামিনে রযেছেন। কল্যাণ সিংকেও জামিন নিতে হল। ২৫ বছর ধরে চলা এই মামলায় কী রায় হতে পারে তার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন অযোধ্যার মুসলিমরাও– যাদের চোখের সামনেই ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল ঐতিহাসিক এই মসজিদটি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only