শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

এনআরসি নিয়ে হিন্দুদের ভয় নেই, অনুপ্রবেশকারীদের ভারত ছাড়তে হবে: রাম মাধব



পুবের কলম ডিজিটাল ওয়েব ডেস্ক :  বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব বলেছেন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি বা এনআরসি নিয়ে হিন্দুদের ভয়ের কিছু নেই, যাদের নাম এনআরসি থেকে বাদ পড়েছে তাঁদের সুরক্ষার দায় কেন্দ্রীয় সরকারের উপরে বর্তাবে।

গতকাল (শুক্রবার) অসমের শিলচরে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময় তিনি ওই মন্তব্য করেন। একইসঙ্গে তিনি ‘অনুপ্রবেশকারীদের ভারত ছাড়তে হবে’ বলে সাফ জানিয়েছেন। অনুপ্রবেশকারীদের ব্যাপারে সরকার কোনও নমনীয় মনোভাব নেবে না বলে তিনি জানান।

রাম মাধব বলেন, এনআরসি থেকে যে ১৯ লাখ লোকের নাম বাদ পড়েছে তাঁদের অনেকের ক্ষেত্রে যেসব ত্রুটি-বিচ্যুতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

উত্তর-পূর্বাঞ্চলে যেসব উপজাতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নাগরিকত্ব বিলের বিরোধিতা করছেন, তাঁদের বোঝানোর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বিজেপির তাত্ত্বিক নেতা রাম মাধবকে। তিনি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বাস্তবায়নের জন্য মাঠে নেমেছেন।

কেন্দ্রীয় সরকার বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, জৈন ও পার্সিদের ভারতে আশ্রয় দিতে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তন করে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) পাসের মধ্য দিয়ে তাঁদের নাগরিকত্ব দিতে চাচ্ছে। কিন্তু নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আইনে পরিণত হলে এই অঞ্চলের স্থানীয় মানুষের জীবনে চরম হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে মেঘালয়, মিজোরাম ও নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রীরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

এ সম্পর্কে  আজ (শনিবার) অসমের সাবেক বিধায়ক মাওলানা আতাউর রহমান মাজারভুঁইয়া 'পুবের কলম' প্রতিবেদককে বলেন, ‘ওটা বিজেপির অ্যাজেন্ডা। ওঁরা ভোটব্যাঙ্কের স্বার্থে হিন্দু নাগরিকদের এ ধরণের ভুয়া প্রতিশ্রুতি বেশ কিছুদিন ধরে দিয়ে আসছে। তাঁদের ওই ভুয়া প্রতিশ্রুতি এনআরসির তালিকা প্রকাশের পরে মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে। যার জন্য বিজেপির অনেক বাঙালি নেতৃত্ব এই এনআরসিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। সুতরাং রাম মাধব যেটা বলছেন সেটা কোনও অবস্থাতেই তা করতে পারবেন না। নাগরিকত্ব বিল ধর্মীয়ভিত্তিতে পাস করাতে পারবেন না। যদিও বা ভোটের জোরে পাস করিয়েও নেন তাহলে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ করলে ওটা বাতিল হয়ে যাবে। কারণ ভারতের সংবিধানে ধর্মের ভিত্তিতে কোনও আইন পাসের অধিকার সুপ্রিম কোর্ট সরকারকে দেয়নি। এজন্য কেবলমাত্র হিন্দুদের জন্য নাগরিকত্ব বিল পাস করলেও তা আইনে টিকবে না। এটা ভোটব্যাঙ্কের স্বার্থে তাঁরা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে এবং তাঁদের মুসলিম বিদ্বেষী হীনষড়যন্ত্র। এর মধ্যদিয়ে তাঁরা হীন মনোভাব, নিম্ন মানসিকতা ও সাম্প্রদায়িক মনোভাবের পরিচয় দিচ্ছে বলেও অসমের সাবেক বিধায়ক মাওলানা আতাউর রহমান মাজারভুঁইয়া মন্তব্য করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only