সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

১৮ মাসের বেশি কাশ্মীরের রাজনীতিবিদদের আটক রাখা হবে না, মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর


জম্মু: ৫ আগস্ট থেকে ‘আটক’ কাশ্মীরের রাজনীতিবিদরা। কবে মুক্তি দেওয়া হবে তাঁদের? সেই প্রশ্নে উৎকণ্ঠা যখন ক্রমশ বাড়ছে, তখন জনসভা থেকে উত্তর দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং। বললেন, ‘যাঁদের আটক করা হয়েছে, তাঁদের ১৮ মাসের বেশি আটকে রাখা হবে না।’
সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জম্মু-কাশ্মীরকে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ঘোষণা করার পরই নিরাপত্তা আইনে সেখানকার মূলস্রোতের রাজনীতিবিদদের আটক করা শুরু হয়। তারপর কেটে গেছে প্রায় ৪৮ দিন। এখনও আটক তাঁরা। কেমন আছেন তাঁরা? কবেই বা বন্দিদশা কাটবে? এই অবস্থায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর জবাব, ‘যাঁদের আটক করা হয়েছে, তাঁদের ১৮ মাসের বেশি আটকে রাখা হবে না’। যদিও মূলস্রোতের রাজনীতিবিদদের আটক করা হয়েছে, তা মানতে নারাজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাঁর মতে, তাঁদের ‘হাউজ গেস্ট’ করে রাখা হয়েছে। সেখানে তাঁদের হলিউড সিনেমা দেখার জন্য সিডি রাখা হয়েছে। এমনকী তাঁদের পছন্দ মতো পাউরুটি দেওয়া হয়েছে খেতে।
এখানেই শেষ নয়। আটক রাজনীতিবিদরা কতটা সুখে দিনগুজরান করছেন, তা বোঝাতে গিয়ে জিতেন্দ্র সিং আরও বলেন, রাজনীতিবিদদের রাখা হয়েছে ভিআইপি বাংলোতে। সেখানে রয়েছে জিম করার সুবিধা। তাঁরা গৃহবন্দি নন। তাঁরা আসলে ‘হাউজ গেস্ট’।
শ্রীনগরে নিজের বাড়িতে ‘বন্দি’ ছিলেন সিপিএম নেতা মুহাম্মদ ইউসুফ তারিগামি। সম্প্রতি এইমসে যান চিকিৎসার জন্য, তাও আবার সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে। সেই সময় তারিগামি বলেন, উপত্যকার অনেক খারাপ সময়েও তিনি এতটা হতাশ হননি। গুলি চলে না জেলেতেও । কিন্তু তবুও সেটা জেল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only