বৃহস্পতিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

'লতা কণ্ঠী' রানু মণ্ডলকে নিয়ে টানা-পোড়েন



                   







শফিকুল ইসলাম, নদিয়া:
 রানু মণ্ডলের সাথে মুম্বই রয়েছেন রানাঘাটের তপন দাস এবং অতীন্দ্র চক্রবর্তী। রানুর মেয়ে এলিজাবেথ সাথীর রায়ের অভিযোগ শুনে কার্যত তারা তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠেন। তারা বলেন, “এসব ডাহা মিথ্য কথা বলা হচ্ছে। আমরা কেন এসব করতে যাব। আমরা কেন রানু মণ্ডলকে ধমক দেব। আমরা তো তাকে নিয়ে মুম্বইতে পড়ে রয়েছি। তিনি কিছু করুন। সেটা তো আমরা চাইছি। তার মেয়ে টাকার লোভ ছাড়তে পারছে না। সেজন্য এসব করছে। তার মেয়ে যা করছে, সেটা বেগোপাড়ার মানুষ মেন নিতে পারছে না। এভাবে অপপ্রচার করতে থাকলে তারা এবার রানুকে এলাকায় ঢুকতে দেবে না। এলাকার ক্লাবের সদস্যরা কি করেছে। আমরা কি করছি। সেটা একালার মানুষ সব জানের। এসব শুনতে খুব খারাপ লাগছে। এতে আমরা আগ্রহ হারিয়ে ফেলছি। এভাবে অপপ্রচার করলে আমরাও আইনের পথে হাঁটতে বাধ্য হব। কারন, এসব মেনে নেওয়া যায় না।” 
পাশাপাশি, রানুর মেয়ে সাথী রায়ের অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় নেট দুনিয়া। সাথীর অভিযোগ তাঁর মা রানুকে আলোয় আনা অতীন্দ্র চক্রবর্তী, তপন দাসের বিরুদ্ধে। কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে সাথীর এই অভিযোগ সামনে আসার পর ফেসবুক লাইভে কড়া ভাষায় জবাবও দিয়েছেন অতীন্দ্র এবং রানু নিজে। একটি সংবাদ সংস্থার তথ্য অনুযায়ী সাথীর বক্তব্য এ-রকম: রানাঘাটের রানুর বাড়ির কাছের একটি ক্লাবের সদস্যরা রানুর সঙ্গে দেখা করতে দিত না মেয়ে সাথীকে। দেখা করার চেষ্টা করলে হুমকি দেওয়া হত। সাথীর নাকি অভিযোগ, দুই ম্যানেজার অতীন্দ্র ও তপন তাঁকে হুমকি দিয়ে বলেছেন, মা রানুর সঙ্গে দেখা করলে তাঁর পা ভেঙে দেওয়া হবে। সাথীর আরও অভিযোগ, রানুর দশ হাজার টাকার অপব্যবহারও করেছেন ওঁরা। সংবাদমাধ্যমে এমন খবর সামনে আসতেই রানু ও তপন দাসকে পাশে বসিয়ে অতীন্দ্র ফেসবুক লাইভে এসে বলেছেন, ‘আমাদের নামে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। মানুষটার জন্য নিঃস্বার্থ ভাবে এত কিছু করার পর এসব শুনে আমার চোখে জল আসছে।’ সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যমগুলির কাছে অতীন্দ্র আবেদন জানিয়েছেন, তারা যেন সত্যিটা প্রকাশ করেন। মঙ্গলবার মুম্বইয়ের হোটেলে অতীন্দ্র ফেসবুক লাইভ করার সময় তাঁর পাশে থাকা রানু মণ্ডলও বলেন, ‘কোনও বদনাম, আজেবাজে কথা যেন না রটে। আমার দশ হাজার টাকা অতীন্দ্ররা নেয়নি। এগুলো মিথ্যে।’ সাথী সত্যিই অতীন্দ্র ,তপনদের বিরুদ্ধে একথা বলেছিলেন কি না, তা অবশ্য জানা যায়নি। সাথীকে ফোনে পাওয়া যায়নি। অতীন্দ্র মুম্বই থেকে ফোনেও জানান, ‘এমন বদনাম দুর্ভাগ্যজনক।’ আর তপন বলেন, ‘আমি বিদেশে কাজ করি। সামান্য দশ হাজার টাকা নিয়ে সাথীর অভিযোগ হাস্যকর।’ অতীন্দ্র বলেন, হিমেশজির উদ্যোগে রানুদির আরও গান রেকর্ড করা হচ্ছে। শুক্রবার পর্যন্ত তাই মুম্বইয়েই থাকতে হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only