শনিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

এনআরসি চালুর হুমকির প্রতিবাদে রাজ্যপালকে কংগ্রেসের স্মারকলিপি

এনআরসি চালুর হুমকির প্রতিবাদে
রাজ্যপালকে কংগ্রেসের স্মারকলিপি


চিন্ময় ভট্টাচার্য


রীতিমতো বিভ্রান্তি ছড়িয়ে রাজ্যবাসীর মধ্যে এনআরসি নিয়ে আতঙ্ক তৈরি করা হচ্ছে। আজ   রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের কাছে এমনই অভিযোগ করল প্রদেশ কংগ্রেস। এই অভিযোগে রাজ্যপালের কাছে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব একটি স্মারকলিপিও জমা দিয়েছেন। স্মারকলিপিতে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র অভিযোগ করেছেন, রাজ্যে এনআরসি আতঙ্কে ইতিমধ্যে ১২ জন আত্মহত্যা করেছেন। তাঁর অভিযোগ, এরাজ্যে এনআরসি চালু করা হবে বলে রীতিমতো পরিকল্পনা করে প্রচার চালানো হচ্ছে। পালটা, একশ্রেণির রাজনৈতিক নেতা দাবি করছেন, এরাজ্যে এনআরসি চালু করা হবে না।

এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকার চুপ করে থাকায় সাধারণ রাজ্যবাসী বিভ্রান্ত হচ্ছেন বলেই প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের অভিযোগ। এই অবস্থায় রাজ্যপালকে উদ্যোগী হয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সঙ্গে এনআরসি নিয়ে কথা বলার অনুরোধ করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। অনুরোধ করেছেন, রাজ্যে এনআরসি চালু হবে না, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক যেন অবিলম্বে একথা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে। কেবলমাত্র তাহলেই এনআরসি সম্পর্কে রাজ্যবাসীর আতঙ্ক দূর হবে বলেই, স্মারকলিপিতে রাজ্যপালকে জানিয়েছেন সোমেন মিত্র।


রাজ্যপালকে স্মারকলিপিতে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি জানিয়েছেন, অসমে এনআরসি চালু হয়েছে, 'অসম চুক্তি' অনুযায়ী। স্রেফ স্থানীয় সংস্কৃতি এবং প্রথা বাঁচানোর স্বার্থে 'অসম চুক্তি' হয়েছিল। অসম সীমান্তে শরণার্থীর ভিড় বাড়ায় অসমের স্থানীয় সংস্কৃতি বিপন্ন হয়ে পড়ছিল। সেই অভিযোগ ওঠায়, 'অসম চুক্তি' স্বাক্ষরিত হয় বলেই সোমেন মিত্র স্মারকলিপিতে জানিয়েছেন। তিনি স্মারকলিপিতে লিখেছেন, বাংলায় আজ পর্যন্ত অসমের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। তাই এরাজ্যে এনআরসি চালুর ভাবনাই অর্থহীন। রাজভবনে প্রদেশ কংগ্রেসের এই প্রতিনিধিদলে সোমেন মিত্রের সঙ্গে ছিলেন, সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য, আবদুস সাত্তার, অমিতাভ চক্রবর্তী, শুভঙ্কর সরকার-সহ প্রদেশ কংগ্রেসের অন্যান্য নেতৃত্ব।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only