শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

উপাচার্যের বিরুদ্ধে নিরুদ্দেশ সংবাদ নোটিশ সাঁটিয়ে বিতর্কে কর্মীসভা



দেবশ্রী মজুমদার, শান্তিনিকেতন, ১৪ সেপ্টেম্বরঃ  উপাচার্যের বিরুদ্ধে নিরুদ্দেশ সংবাদ নোটিশ  সাঁটিয়ে বিতর্কে বিশ্বভারতীর কর্মীসভা। বিশ্বভারতী চত্বরে বিভিন্ন জায়গায় এই বিজ্ঞপ্তি চোখে পড়ে। তাতে লেখা বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে পাওয়া যাচ্ছে না। যাঁর উচ্চতা পাঁচ ফুট দশ ইঞ্চি

পরনে পাঞ্জাবি, পাজামা, পায়ে মোজা, পাকা চুল ও গোঁফ। কেউ সন্ধান দিতে পারলে উপযুক্ত পুরস্কার দেওয়া হবে। তার নীচে লেখা বিশ্বভারতী কর্মীসভা। এই বিজ্ঞপ্তি নজরে আসতেই মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় বিভিন্ন মহলে। অনেকেই নিন্দা করেন এই ধরণের বিজ্ঞপ্তির। এব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হয়, বিশ্বভারতী স্বীকৃত কর্মীসভার দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি গগন সরকারকে। তিনি এই বিজ্ঞপ্তির দায়িত্ব স্বীকার করে বলেন, এই রকম ক্রাইসিসের মুহূর্তে উপাচার্য বিশভারতীতে নেই। তার কোন সন্ধানও নেই। সন্ধান চাই। এই পোস্টার আমরাই দিয়েছি।

অন্যদিকে, বিশ্বভারতীতে এই কাদা ছোড়াছুড়ি অনেকেই পছন্দ করছেন না। এব্যাপারে বিশ্বভারতী স্বীকৃত আরেক শিক্ষা সংগঠন অধ্যাপক সভার নেতা  কিশোর ভট্টচার্যকে জিজ্ঞেস করা হয়। তিনি বলেন, হু। এতো হয়েই আছে। এসব ঘটনা তো শান্তিনিকেতনে চলে। বক্তব্য হিসেবে বলবো, এসব ঘটনায় না জড়িয়ে , অবিলম্বে আলোচনায় বসে সমস্যার সমাধান করাটাই যুক্তিযুক্ত। শান্তিনিকেতনের শালীনতা বজায় রেখে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়ায় কাম্য।  

উপাচার্য শান্তিনিকেতনে আছেন কিনা এবং তাঁর সম্পর্কিত নিরুদ্দেশ সংবাদ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, বিশ্বভারতীর জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বান সরকার জানান, বিশ্বভারতীর ওয়েবসাইটে দেওয়ায় আছে, সরকারি কাছে উপাচার্য বাইরে আছেন। তাঁর জায়গায় বিশ্বভারতীর নিয়ম মেনেই সিনিয়রমোস্ট সঙ্গীত ভবনের অধ্যক্ষ অধ্যাপক নিখিলেশ চৌধূরীকে দায়িত্বভার দেওয়া আছে। এর মধ্যে হারিয়ে যাওয়ার তো কিছু নেই। নিরুদ্দেশের কোন সম্ভাবনা নেই। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের কাছে এই (নিরুদ্দেশ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সাঁটানো) ব্যাপারটা শিশুসুলভ এবং হাস্যকর মনে হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only