মঙ্গলবার, ১ অক্টোবর, ২০১৯

উৎসবের মরশুমে অমিত শাহ রাজ্যে এসে এনআরসি নিয়ে আতঙ্ক ও গুজব ছড়াচ্ছেন: অমিত মিত্র

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ মঙ্গলবার কলকাতার ইনডোর স্টেডিয়ামে এনআরসি জুজু দেখালেন রাজ্যের মানুষকে। বললেন, হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, ক্রিস্টান শরণার্থীদের কোনও চিন্তা নেই। সবাইকে সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল পাসের মাধ্যমে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। 

অসমে ১৯ লাখ ঠাঁই না পাওয়া নাগরিকদের মধ্যে ১৩ লাখই হিন্দু। অথচ সেখানে বিজেপি বারবার প্রচার করেছে, হিন্দুদের বের করা হবে না। এখানেও সেই চেষ্টা করল বিজেপি।তিনি বলেন, বলা হচ্ছে, হিন্দুদেরও তাড়িয়ে দেওয়া হবে। এর চেয়ে বড় মিথ্যা হতে পারে না। হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ শরণার্থীদের কেউ দেশ ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য করবে না। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হলে শরণার্থীরাও দেশের নাগরিক হিসাবে সমস্ত অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা পাবেন তাঁরা।

এনআরসি নিয়ে এমনিতেই আতঙ্কে রাজ্যের মানুষ।আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটছে।এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে এসে অমিত শাহের এ হেন মন্তব্যের চরম নিন্দা করলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। তিনি বলেন, বাংলায় এখন শারদীয়া দুর্গাপুজোর আবহ। এই উৎসবের মরশুমে অমিত শাহ রাজ্যে এসে এনআরসি নিয়ে আত্ঙ্ক ও গুজব ছড়াচ্ছেন। তিনি কি জানেন না, এ রাজ্যে এনআরসি আতঙ্কে ১৭জন ইতিমধ্যে মারা গেছে? 

রাজ্যের একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের জন্য বিজেপি ষড়যন্ত্রের জাল পাকাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। রাজ্যের বিদগ্ধ অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বিজেপির নেতারা বলেছেন, একটি সম্প্রদায়ের মানুষকে তারা বাংলা থেকে তাড়াবেন।এটা নিঃসন্দেহে তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। 

অমিত শাহ এদিন বলেন, হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ শরণার্থীদের কেউ দেশ ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য করবে না। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হলে শরণার্থীরাও দেশের নাগরিক হিসাবে সমস্ত অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা পাবেন তাঁরা। অমিত শাহের এই বক্তব্যের জবাবে অমিত মিত্র বলেন, দেশের সংবিধান এমন ধর্মীয় পক্ষপাতমূলক কাজকে সমর্থন করে না। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only