শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯

দুষ্প্রাপ্য বাইবেল চুরির নেপথ্যে খোদ অধ্যাপক

ঘটনাটা ঘটছে ২০১২ সাল থেকে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক-শিক্ষার্থীদের কার্যত চোখে ধুলো দিয়ে কীভাবে গায়েব হয়ে যাচ্ছিল বাইবেলের প্রাচীন কপি, ধরতে পারছিলেন না তাঁরা। অবশেষে চোর ধরা পড়ল। তবে 'চোর' এমন এক ব্যক্তি যে বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে।

অক্সফোর্ড'স অক্সিরিঞ্চাস পেপারি প্রোজেক্ট ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি প্রকল্প যেখানে শতাব্দীপ্রাচীন সাহিত্যকীর্তি কিংবা প্রাচীন নথিসংরক্ষণ করা হয়। ১৮৯৬ সালে মিশরের এক আবর্জনা স্তুপ থেকে সেই প্রকল্পের কিছু মূল্যবান সংরক্ষণ পাওয়া গিয়েছিল। এমন গুরুত্বপূর্ণ নথিচুরি করার অভিযোগ ওঠে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডির্ক অবিঙ্কের বিরুদ্ধে! এই প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত তিন মাস ধরে গভীর তদন্ত করে আমরা বুঝতে পারি, অন্তত ১১টি প্রাচীন বাইবেলের দুষ্প্রাপ্য সংরক্ষণ চুরি করার পর অধ্যাপক ডির্ক অবিঙ্ক বিক্রি করে দিয়েছিলেন হবিলবি নামে একটি সংস্থাকে। ওয়াশিংটনের দাতব্য সংস্থা হিসাবে কাজ করার পাশাপাশি বাইবেল মিউজিয়াম গড়ে তুলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিখ্যাত নাম হবি লবি। 

অক্সফোর্ডের উল্লেখিত প্রকল্পের তদারকির দায়িত্বে থাকা অলাভজনক সংস্থা ' এজিপট এক্সপ্লোরেশন সোসাইটি' (ইইসি) চৌর্যবৃত্তিতে অধ্যাপকের যুক্ত থাকার ব্যাপারে ওয়াশিংটন পোস্ট-কে জানিয়েছে। হবিলবি'র বাইবেল মিউজিয়ামের এক মুখপাত্র বলেছেন, অধ্যাপকের কাছে দুষ্প্রাপ্য বাইবেলের নথি 'সরল বিশ্বাস' কেনা হয়েছিল।অক্সফোর্ড জানিয়েছে, চুরির ব্যাপারে আরও উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত করা হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only