শনিবার, ২৬ অক্টোবর, ২০১৯

বিত্ত নিগম ও নিফটের যুগলবন্দি, স্বনির্ভরতার পথে ১১৫ জন তরুণ-তরুণী

রাজ্যের সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে এক নতুন রূপ পেয়েছে। সংখ্যালঘু ছেলেমেয়েরা যাতে সাধারণ শিক্ষা থেকে শুরু করে উচ্চশিক্ষাতেও সফল হতে পারে– দারিদ্র্য যেন বাধা হয়ে না দাঁড়ায়– সেইজন্য মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় স্কলারশিপের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ বছর এখনও পর্যন্ত ৪৬ লক্ষ ছাত্রছাত্রী আবেদন করেছে। সমগ্র দেশে এটি একটি রেকর্ড। এ ছাড়া সংখ্যালঘুদের জন্য উচ্চশিক্ষায় হয়েছে লোন স্কলারশিপেরও ব্যবস্থা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য রয়েছে আবাসিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা।  
সংখ্যালঘু বলতে পারসি– জৈন– শিখ– বৌদ্ধ– মুসলমান ও খ্রিস্টান-স্বীকৃত এই সম্প্রদায়গুলি বিত্ত নিগম থেকে ঋণ– স্কলারশিপ ও নানা ধরনের স্বনির্ভরতামূলক প্রকল্পে সহায়তা পেয়ে থাকেন। 
বৃহস্পতিবার বিত্ত নিগমের নিজস্ব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হল তাদের স্কিল ডেভালপমেন্ট ট্রেনিং প্রোগ্রাম। স্কিল ডেভালপমেন্ট ট্রেনিংয়ে যারা সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছে– তাদের হাতে তুলে দেওয়া হল সার্টিফিকেট। বিত্ত নিগম সংখ্যালঘু তরুণ-তরুণীদের স্বনির্ভর করে তোলার লক্ষ্যে স্কিল ডেভালমেন্ট বা দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য যে প্রকল্প নিয়েছে– তাতে নিফট বা ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ ফ্যাশন টেকনলজির সহায়তায় একদল ছেলে-মেয়েদের এক বছরের জন্য সান্ধ্যকালীন কোর্সে পড়াশোনার সুযোগ করে দিয়েছিল। এর মধ্যে ক্লোদিং প্রোডাকশন টেকনলজি বা পোশাক তৈরির প্রযুক্তিতে ছেলেমেয়ে মিলে ভর্তি হয়েছিল ৮০ জন। আর ফ্যাশন নিটওয়ারের কোর্সে ভর্তি হয় ৩৫ জন। বিত্ত নিগম ৩৫ জন আবাসিকদের থাকার জন্য হস্টেলেরও ব্যবস্থা করেছিল। 
এই সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ আহমদ হাসান (ইমরান), নিফট-এর পরিচালক কর্নেল সুব্রত বিশ্বাস, রাজ্য সংখ্যালঘু দফতরের বিশেষ সচিব শাকিল আহমেদ, বিত্ত নিগমের এমডি মৃগাঙ্ক বিশ্বাস, নিগমের ম্যানেজার শামসুর রহমান, নিগমের সদস্য ও বিধায়ক আবদুল খালেক মোল্লা, প্রাক্তন বিধায়ক পারভেজ রহমান ও নাসিরুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ। 

এর মধ্যে নিফট-এর এই ট্রেনিংয়ে লাভবান হয়েছেন বেশ কিছু তরুণ-তরুণী। বেশ কিছু ছাত্রছাত্রী নামজাদা সংস্থায় চাকরি করছেন কিংবা নিজেরাই নিজস্ব পোশাক ব্যবসা শুরু করেছেন। একজন তরুণ ‘মডেস্টি’ নামে নিজস্ব একটি ব্র্যান্ডও চালু করেছে। এই ব্র্যান্ডের বেশ কিছু শোরুমও কলকাতার নানা স্থানে রয়েছে। মডেস্টি মূলত হিজাব ও মহিলাদের আনুষঙ্গিক পোশাক তৈরি করে। বিদেশেও এর চাহিদা বাড়ছে। বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের এক তরুণী মিস বড়ুয়া এই ট্রেনিং গ্রহণ করে খুশি। সে আরও অনেক বৌদ্ধ মেয়েকে এই ট্রেনিংয়ে যুক্ত করার আশা রাখে। এই অনুষ্ঠানটি দক্ষতার সঙ্গে সঞ্চালনা করেন জনাব শামসুল রহমান। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only