রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯

স্বাক্ষর হতে চলেছে নাগা শান্তি চুক্তি, এনএসসিএন-আইএম আলাদা পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে অনড়

চলতি মাসের শেষের দিকেই সম্পন্ন হতে পারে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত নাগা শান্তি চুক্তি। অর্থাৎ অক্টোবর মাসের শেষের দিকেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে চলেছে। বিশেষ সূত্র থেকে এমনই ইঙ্গিত মিলেছে। মনে করা হচ্ছে, আইজ্যাক-মুইভা গোষ্ঠীকে বাদ দিয়েই অন্যান্য নাগা সংগঠনের সঙ্গে এই চুক্তি করতে চলেছে কেন্দ্র। 

উল্লেখ্য, একমাত্র আইজ্যাক-মুইভার ‘ন্যাশনাল সোশ্যালিস্ট কাউন্সিল অব নাগাল্যান্ড’ দাবি করেছিল, নাগাল্যান্ডের জন্য আলাদা পতাকা ও সংবিধান করতে হবে। তারপরই তারা এই চুক্তিতে সম্মতি দেবে। কিন্তু, তাদের এই দু’টি দাবি মানতে নারাজ। মনে করা হচ্ছে, সেই কারণেই তাদের বাদ দিয়েই অন্যান্য নাগা সংগঠনগুলির সঙ্গে শান্তিচুক্তি চূড়ান্ত করতে চাইছে কেন্দ্র। সেক্ষেত্রে অন্যান্য নাগা গোষ্ঠীগুলি এই শান্তিচুক্তিকে সমর্থন করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। 
দীর্ঘ ২২ বছর ধরে চলছে এই শান্তিচুক্তি আলোচনা। চলতি মাসেই সেই প্রতীক্ষায় যবনিকা পড়তে চলেছে। নাগাল্যান্ডের রাজ্যপাল আর এন রবি জানান, সমস্ত নাগা সশস্ত্র গোষ্ঠী এই চুক্তির লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের আলোচনাকারী সদস্যদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে এবং শান্তি চুক্তির চূড়ান্ত খসড়া তালিকাও প্রস্তুত করা হয়ে গিয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের আলোচনাকারী প্রতিনিধি দলের অন্যতম রাজ্যপাল রবি।

উল্লেখ্য, একদিন আগেই রাজ্যপাল অভিযোগ করেছিলেন, এই শান্তিচুক্তি সম্পন্ন হতে যে বিলম্ব হচ্ছে সেজন্য নাগা গোষ্ঠী ন্যাশনাল সোশ্যালিস্ট কাউন্সিল অব নাগাল্যান্ড (আইজ্যাক-মুইভা)-ই দায়ী। একমাত্র এনএসসিএন-আইএম চুক্তি চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে নাগাদের জন্য আলাদা পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে অনড় রয়েছে। কেন্দ্র যে আইজ্যাক-মুইভা গোষ্ঠীর দাবি মানবে না তাও স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন রাজ্যপাল। সেইসঙ্গে অবশ্য তিনি দাবি করেছিলেন, নাগাদের যাবতীয় সমস্যা– প্রতিবন্ধকতাকে এই শান্তি প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত চুক্তিটির মধেও অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে এবং তা স্বাক্ষর করার জন্য পারস্পরিক সম্মতিতে একটি খসড়াও তৈরি করা হয়েছে। সেখানে আরও বলা হয়েছে– কেন্দ্রের মোদি সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ও পরিশ্রমী নাগা শান্তিচুক্তির একটি সম্মানজনক সমাধানের লক্ষ্যে। 
   




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only