মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

শঙ্করী বাগদি খুনের ঘটনায় স্বীকারোক্তি মৃতার ছেলের



পুবের কলম  নানুর: গোষ্ঠী সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে সোমবার দুপুর নাগাদ গুলিবিদ্ধ হন শঙ্করী বাগদি। তার পর মাঠে নেমে পড়েন বিজেপি নেতৃত্ব। বোলপুরের প্রাক্তন এমপি অনুপম হাজরা দাবি করেন, তাদের বিজেপি কর্মীর মা'র মৃত্যু হয়েছে।ঘটনায় আহত আরও পাঁচ জন।

বোলপুর হাসপাতালে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান বিজেপি জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মন্ডল ও অনুপম হাজরা। ওই সময় আহত বৈদনাথ বাগদি জানান, যে নির্বাচনের সময় শঙ্করী বাগদীর ছেলে বিজেপি করতেন এবং এই খুনের পিছনে তৃণমূলের দলের কর্মী সমর্থকরা রয়েছে।

কিন্ত নানুরের তৃণমূল সভাপতি কাজল সেখ ও সুদীপ্ত ঘোষ ওই পরিবারের সদস্যদের দেখা করার পর মন্তব্য পরিবর্তন করে ফেলেন আক্রান্তরা। তাঁরা জানান,   তাঁরা তৃণমূল সমর্থক। মৃতার ছেলে উদয় বাগদীও জানানা তিনি আদ্যপান্ত তৃণমূলের সমর্থক।পারিবারিক অশান্তি জেরে হিংসাত্বক ঘটনাটি ঘটেছে।বিজেপি নেতারা এখানে নোংরা রাজনীতি করেছে ।

অপরদিকে বিজেপি জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মন্ডল জানান, যে আমাদের সক্রিয় ভূমিকা দেখে ভয় দেখিয়ে উদয় অভিযোগ ঘুরিয়ে দিয়েছে। তবে ভয় দেখিয়ে বেশি দিন টিকে থাকা যায় না। জেলার অনান্য মানুষ সত্যি ঘটনা জানে। কী ঘটছে আর তৃণমূল কী ঘটিয়েছে। তবে নানুর থানার পুলিশ সোমবার রাতেই দিকে এই ঘটনায় এক অভিযুক্ত মঙ্গলা বাগদীকে গ্রেফতার করে। তাকে মঙ্গলবার বোলপুর আদালতে তোলা হয় । পুলিশের তরফে ৭ দিনের পুলিশ হেফাজতে চাওয়া হয়। বিচারপতি ৫ দিনের মঞ্জুর করে । আগামী ২৭ অক্টোবর অভিযুক্তকে আদলতে ফের তোলা করা হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only