শনিবার, ২৬ অক্টোবর, ২০১৯

বন্দি উইঘুর অধ্যাপককে পুরস্কৃত করল ইইউ


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: এক বছর ধরে তিনি চিনে বন্দি। বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ হলেও তার একমাত্র অপরাধ তিনি উইঘুর মুসলিম এবং মানবাধিকার কর্মী। হতে তার মানবাধিকারের লড়াই এখন বিশ্ব বন্দিত হয়েছে। ফলে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট তাকে এ বছর সর্বোচ্চ মানবাধিকার পুরস্কার নিয়ে সম্মানিত করল। এই বিশিষ্ট অধ্যাপকের নাম ইলহাম তোহতি। তাতে তোহতিকে সম্মান জানানো চিনের রোষের মুখে পড়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

জিংজিয়াং-এর উইঘুর মুসলিমদের বৃহত্তর স্বায়ত্ত্বশাসনের পক্ষে কথা বলায়  তাঁর বিরুদ্ধে সন্ত্রাস ছড়ানোর অভিযোগ ওঠে। ২০১৪ সালে সালে তোহতিকে যাবজ্জীবনের সাজা শোনায় চিনা আদালত। চিনে এখন তাঁকে সন্ত্রাসী হিসাবেই গণ্য করা হয়। তোহতি বহু বছর ধরে উইঘুরদের ওপর চিন সরকারের কড়া বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে কথা বলে আসছেন। উভয়পক্ষের মধ্যে আলোচনারও আহ্বান জানিয়ে ছিলেন। কিন্তু সেই প্রস্তাবও খারিজ করে দেয় চিন।

চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালের মানবাধিকার নিয়ে স্বাধীন চিন্তার জন্য শাখারভ পুরস্কারের জন্য তোহাতিকে বেঁছে নিয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন।বৃহস্পতিবার ইইউ-এর পক্ষ থেকে বিষয়টি ঘোষণা করা হয়। ইউরোপীয় পার্লামেন্টেরি প্রেসিডেন্ট ডেভিড সাসোলি বলেন, 'তোহতির কন্ঠে ধ্বনিত হয়েছে সংযম এবং সম্প্রীতির সুর। তাতে এ পুরস্কার দিয়ে আমরা চিন সরকারের কাছে তাঁর মুক্তির পাশাপাশি চিনে সংখ্যালঘুদের অধিকারকে সম্মান প্রদর্শনের জোরাল আহ্বান জানাচ্ছি।'

তবে তোহতিকে নিয়ে ইইউ-এর এমন পদক্ষেপকে ভালো চোখে নেয়নি চিন। এই বিষয়ে চিনের বিদেশমন্ত্রকের প্রতিক্রিয়া, আপনারা যে পুরস্কারের কথা বলছেন তা জানিনা।আমরা যা ইলহাম তোহতি একজন অপরাধী। তাকে চিনের আদালত আইন অনুযায়ী সাজা দিয়েছে। সব পক্ষই চিনের অভ্যন্তরীন বিষয় এবং সন্ত্রাসীদের ঔদ্ধত্য বাড়ানোর জন্য এমন পদক্ষেপ কখনই আশা করে না চিন। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only