শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯

চৈতল থেকে বারাসতে ঐতিহাসিক বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চের

পুবের কলম, বসিরহাটঃ এনআরসি রোধে মিনাখাঁর চৈতল ফেরিঘাটের সভা থেকে বারাসত জেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিল নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চ। আগামী ২২ অক্টোবর মঙ্গলবার ওই বিক্ষোভ সমাবেশের পর উত্তর ২৪ পরগনা জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি দেবে নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চ।

শনিবার বিকেলে চৈতলে বিদ্যাধরী নদীর ফেরিঘাটের কাছে  সংঠনের পক্ষে প্রায় পাঁচ হাজার  মানুষের উপস্হিতিতে  এক সমাবেশে বক্তারা জানান, ওইদিন জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই এন আরসি বিরোধী সমাবেশে যোগ দেবে। বক্তব্য রাখেন  সারা  বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান, দলিত নেতা সুকৃতিরঞ্জন বিশ্বাস, সারা ভারত মতুয়া মহাসংঘের সভানেত্রী তথা নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চের চেয়ারম্যান মমতাবালা ঠাকুর, বন্দী মুক্তি কমিটির রাজ্য সম্পাদক ছোটন দাস , অল ইন্ডিয়া সুন্নত অল জামাতের সর্বভারতীয়  সম্পাদক মুফতি আব্দুল মাতিন, আইনজীবি আব্দুল হান্নান, পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা ছাত্র ইউনিয়নের রাজ্য সম্পাদক মাওলানা গিয়াস উদ্দিন, হাফেজ বাকিবিল্লাহ, মোহাম্মাদ ওমর ফারুক প্রমুখ।

সভাপতিত্ব করেন সারা বাংলা ইমাম মোয়াজ্জেন কাউন্সিলের রাজ্য সম্পাদক মাওলানা আখতার হোসেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি তোলা হয় দেশের সংবিধানের উপর কোনরকম আঘাত হানতে দেওয়া হবে না। কোনমতেই হিন্দু, মুসলিম, জৈন, খ্রীষ্টান, আদিবাসী, মতুয়া সহ কোন ধর্মের মানুষকে বেনাগরিক করা যাবে না। দেশের বর্তমান সরকারের এন আরসি চক্রান্তকে রুখে দিতে ইংরেজ সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের পুর্বপুরুষরা যেভাবে লড়াই করে ভারতকে রক্ষা করেছিল সেভাবে আমরা লড়াই করতে প্রস্তুত।
এই সমাবেশ থেকে ভোটার আই কার্ড ভেরিফিকেশন, আধার কার্ড সহ প্রয়োজনীয় সরকারি কাগজপত্র সংশোধনে সরলতা আনার দাবি তোলা হয় । স্হানীয় সমস্যাও তুলে ধরে এলাকাবাসী। চৈতল ও মালঞ্চে বিদ্যাধরী সেতুতে লাইট অকেজো হওয়ায় সমাজ বিরোধী কাজ বেড়েছে। অবিলম্বে তার ব্যবস্হা করতে হবে। সেই সঙ্গে এলাকায় সমস্ত রকমের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রশাসনের স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ভুমিকার দাবি তো হয়। মঙ্গলবার বারাসতে গল মত নির্বিশেষে এনআরসি বিরোধী সমস্ত মানুষকে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে চৈতলের সমাবেশ থেকে হাত তুলে আহ্বান জানায় সকলে।



পুবের কলম, বসিরহাটঃ এনআরসি রোধে মিনাখাঁর চৈতল ফেরিঘাটের সভা থেকে বারাসত জেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিল নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চ। আগামী ২২ অক্টোবর মঙ্গলবার ওই বিক্ষোভ সমাবেশের পর উত্তর ২৪ পরগনা জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি দেবে নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চ।

শনিবার বিকেলে চৈতলে বিদ্যাধরী নদীর ফেরিঘাটের কাছে  সংঠনের পক্ষে প্রায় পাঁচ হাজার  মানুষের উপস্হিতিতে  এক সমাবেশে বক্তারা জানান, ওইদিন জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই এন আরসি বিরোধী সমাবেশে যোগ দেবে। বক্তব্য রাখেন  সারা  বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান, দলিত নেতা সুকৃতিরঞ্জন বিশ্বাস, সারা ভারত মতুয়া মহাসংঘের সভানেত্রী তথা নাগরিকত্ব সংগ্রাম মঞ্চের চেয়ারম্যান মমতাবালা ঠাকুর, বন্দী মুক্তি কমিটির রাজ্য সম্পাদক ছোটন দাস , অল ইন্ডিয়া সুন্নত অল জামাতের সর্বভারতীয়  সম্পাদক মুফতি আব্দুল মাতিন, আইনজীবি আব্দুল হান্নান, পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা ছাত্র ইউনিয়নের রাজ্য সম্পাদক মাওলানা গিয়াস উদ্দিন, হাফেজ বাকিবিল্লাহ, মোহাম্মাদ ওমর ফারুক প্রমুখ।

সভাপতিত্ব করেন সারা বাংলা ইমাম মোয়াজ্জেন কাউন্সিলের রাজ্য সম্পাদক মাওলানা আখতার হোসেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি তোলা হয় দেশের সংবিধানের উপর কোনরকম আঘাত হানতে দেওয়া হবে না। কোনমতেই হিন্দু, মুসলিম, জৈন, খ্রীষ্টান, আদিবাসী, মতুয়া সহ কোন ধর্মের মানুষকে বেনাগরিক করা যাবে না। দেশের বর্তমান সরকারের এন আরসি চক্রান্তকে রুখে দিতে ইংরেজ সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের পুর্বপুরুষরা যেভাবে লড়াই করে ভারতকে রক্ষা করেছিল সেভাবে আমরা লড়াই করতে প্রস্তুত।

এই সমাবেশ থেকে ভোটার আই কার্ড ভেরিফিকেশন, আধার কার্ড সহ প্রয়োজনীয় সরকারি কাগজপত্র সংশোধনে সরলতা আনার দাবি তোলা হয় । স্হানীয় সমস্যাও তুলে ধরে এলাকাবাসী। চৈতল ও মালঞ্চে বিদ্যাধরী সেতুতে লাইট অকেজো হওয়ায় সমাজ বিরোধী কাজ বেড়েছে। অবিলম্বে তার ব্যবস্হা করতে হবে। সেই সঙ্গে এলাকায় সমস্ত রকমের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রশাসনের স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ভুমিকার দাবি তো হয়। মঙ্গলবার বারাসতে গল মত নির্বিশেষে এনআরসি বিরোধী সমস্ত মানুষকে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে চৈতলের সমাবেশ থেকে হাত তুলে আহ্বান জানায় সকলে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only