মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯

বিজ্ঞানী কালামের জন্মদিনে আলোচনাসভা কলকাতায়

বক্তা জাহিরুল হাসান
শুধুমাত্র রাষ্ট্রপতি হিসেবে নয়, ব্যক্তিত্ব দিয়ে এ পি জে আবদুল কালাম যে চারিত্রিক দৃঢ়তা দেখিয়েছেন তা অনুসরণ করা উচিত। মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর আবুল কালামের জন্মদিন উপলক্ষে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্ক সার্কাস ক্যাম্পাসে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় একথা বলেন সারাবাংলা সংখ্যালঘু যুবফেডারেশনের সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান।
তিনি বলেন– প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এ পি জে আবদুল কালাম কোনও রাজনৈতিক দল বা সরকারের সঙ্গে কখনও আপোষ করেননি। কোনও সরকার বা রাজনৈতিক দল যেমন তাঁকে ব্যবহার করতে পারেননি, তেমনিই তিনি কখনও নিজেকে ব্যবহার হতে দেননি। তিনি সবসময় মেরুদণ্ড সোজা করে চলেছেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন লেখক ও সম্পাদক জাহিরুল হোসেন, বিশ্বকোষ পরিষদের কর্ণধার পার্থ সেনগুপ্ত– নলহাটি কলেজের অধ্যাপক ড. কামালউদ্দিন প্রমুখ। বক্তারা প্রত্যেকেই যেমন আবদুল কালামের জীবনীর ওপর বক্তব্য রাখেন তেমনিই তাঁর কাজের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। 

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কালাম যে সম্পূর্ণ ধর্মনিরপেক্ষ  মনোভাবাপন্ন ছিলেন, সেই কথাই তুলে ধরেন লেখক জাহিরুল হোসেন। তিনি বলেন, সম্প্রীতির মধ্যে দিয়ে বড় হয়েছেন আবদুল কালাম। ভাগবৎ গীতাও তিনি পড়েছেন। তিনি হিন্দু-মুসলিম সমস্ত সম্প্রদায় সর্বোপরি দেশের কথা ভেবে কাজ করেছেন। জাহিরুল সাহেব আরও বলেন, দেশকে সুরক্ষিত করতে দেশের প্রতিরক্ষাকে আরও দৃঢ় করার ক্ষেত্রে তাঁর অবদান যেমন অনস্বীকার্য তেমনিই দেশের উন্নয়নে– সমাজের উন্নয়নেও তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।
প্রসঙ্গত– ১৫ অক্টোবর প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির জন্মদিনকে সম্মান দিয়ে এই দিনকে বিশ্ব ছাত্র দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছিল ইউনিসেফ। বাইরে থেকে তাঁকে সম্মান দেওয়া হলেও নিজের দেশে তাঁকে সেভাবে সম্মান দেওয়া হচ্ছে না বলে দুঃখপ্রকাশ করেন বিশ্বকোষ পরিষদের সম্পাদক পার্থ সেনগুপ্ত। সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব কনভেশনের সভাপতি ড. নুরুল ইসলাম বলেন, আবদুল কালাম দেশের জন্য কি করেছেন এবং তাঁর যে সমস্ত স্বপ্ন ছিল সেটাই বিবেচ্য বিষয়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only