সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯

ধর্মচর্চার সঙ্গে ইসলামের ঐতিহ্যবাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতেও এগিয়ে চলতে হবে: ইমরান



    ইনামুল হক, বসিরহাট:
সারা দুনিয়াতে একদা মুসলিমরা জ্ঞানে, বিজ্ঞানে এবং ইসলামের আধ্যাত্মিকতা ও সামাজিক ইনসাফের ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দিয়েছিল। আমাদের পুনরায় সেই যুগের অর্জনের ওপর ভিত্তি করে এগিয়ে যেতে হবে। কংগ্রেস ও বাম সরকারের আমলে এ রাজ্যে সংখ্যালঘুদের ওপর সরকারি বঞ্চনা ও বিভাগজনিত অবক্ষয়ের ফলে মুসলিমরা যে ক্রমশ পিছিয়ে পড়েছিল সাচার কমিটির রিপোর্টে তা প্রকাশিত হয়।

এই অবস্থা থেকে বর্তমানে মুসলিমরা যে ফের ঘুরে দীড়াতে সক্ষম হচ্ছে সাম্প্রতিক বিভিন্ন সংখ্যালঘু পরিচালিত মিশন বা
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির ফলাফল দেখলেই তা সহজেই অনুমিত হয়। প্রতি বছর এখন পাঁচ বা ছশোর মতো সংখ্যালঘু
ছেলেমেয়ে ডাক্তারি পরীক্ষায় সুযোগ পাচ্ছে। ইঞ্জিনিয়ারিং-এর অবস্থা আরও ভালো। ডব্লিউবিসিএস-এও উল্লেখযোগ্য
হারে সাফল্য এক মনে করিয়ে দিচ্ছে এতোদিন তারা যথেষ্ট সুযোগ পাচ্ছিল না।

রবিবার উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটের কাছে পঞ্চানন তলা এলাকায় আল আকসা আ্যাকাডেমির বার্ষিক শিক্ষামূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এসে একথা বলেন সাংসদ তথা দৈনিক পুবের কলম পত্রিকার সম্পাদক আহমদ হাসান (ইমরান)। তিনি বলেন, “আল আকসা”একটি পবিত্র নাম | মুসলিমদের প্রথম কিবলা । সারা বিশ্বের মুসলিমরা প্রথমে এদিকে ফিরে নামীয পড়তেন। পরে পবিত্র কাবার দিকে কিবলা হয়। এছাড়া আল্লাহর নবী(সা.) আল আকসা মসজিদ থেকে মিরাজে গিয়েছিলেন। সেই বিখ্যাত ও পবিত্র মসজিদের নামানুসারে আল আকসা একাডেমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি গড়ে উঠেছে। শিয়ালদহ-হাসনাবাদ লাইনে বসিরহাটের ভ্যাবলা স্টেশন থেকে মাত্র দু কিলোমিটার দূরে মালঞ্চ-বসিরহাট রোডের ধারে অবস্থিত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির অষ্টম বার্ষিক অনুষ্ঠানে এ দিন একরাঁক গুণিজনকে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করা হয়।
সংবর্ধনা গ্রহণ করে আহমদ হাসান ইমরান বলেন, সমস্ত শিক্ষাই আল্লাহ প্রদত্ত শিক্ষা । দ্বীনি শিক্ষার মধ্যেই ইসলামের নীতি আদর্শ রয়েছে। এই দ্বীনিশিক্ষার সঙ্গে দুনিয়ার প্রয়োজনীয় আধুনিক শিক্ষার সমন্বয় রেখে আমাদের চলতে হবে। আমাদের যেমন একজন মুমিন মুসলিম বা মুসলিমা হতে হবে, তেমনি সাধারণ বিজ্ঞান ও সমাজমুখী শিক্ষার্থীও হতে হবে। তিনি বলেন, আমরা বাঙালি, না ভারতীয়, না মুসলিম এ নিয়ে যখন প্রশ্ন ওঠে, তখন মনে পড়ে চিরকালীন অমীমাংসিত বিতর্কিত প্রবাদ “ডিম আগে না মুরগী আগে?। স্বাধীন ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী মাওলানা আবুল কালাম আজাদ বলতেন, দেশের কথা এলে প্রথমত আমরা ভারতীয়, দ্বিতীয়ত ভারতীয়, তৃতীয়তও, ভারতীয়। ইসলামের কথা এলে প্রথমেই আমরা ঈমানদার মুসলিম, দ্বিতীয়ত ঈমানদার মুসলিম এবং তৃতীয়ত ঈমানদার মুসলিম। শিক্ষাক্ষেত্রে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে হিন্দু-মুসলিম কোনও বিভেদ আনা যায় না। আল আকসা একাডেমি সেই চেতনা নিয়ে এলাকায় শিক্ষার বিপ্লব ঘটাতে চায়। শিক্ষার প্রসারে মায়েদের কথা বলতে গিয়ে ইমরান সাহেব বলেন, আরবিতে একটি প্রবাদ আছে, প্রতিটি মা এক-একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়। মায়েরা এগিয়ে না এলে শিক্ষা সম্পূর্ণ হয় না। নারীশিক্ষায় বেগম রোকেয়া, সাওলাতুন্নেছাদের যে ইতিহাস রয়েছে তা চর্চা হওয়া যেমন জরুরি তেমনি মা খাদিজা রা., মা আয়েশা রা.-দের জীবনীও পড়তে হবে। তিনি ৭০০-৮০০ বছর আগে মরক্কোর দুই বোনের উদ্যোগে বিশ্ব বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কথাও তুলে ধরে বলেন, শিক্ষাজগতে আল আকসা একাডেমি নব পর্যায়ে মান সম্পন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার কাজ শুরু করেছে।
এদিনের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অল ইন্ডিয়া সুন্নত আল জামাতের সর্বভারতীয় সভাপতি মুফতি আব্দুল মাতিন। তিনি বলেন, ভারতের নাগরিক হিসেবে আমি অবশ্যই একজন ভারতীয়। কিন্তু মনে রাখতে হবে আমার আর একটি পরিচয় একইসঙ্গে আমি মুসলিমও ৷ ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ কাঠামোর মধ্যে আমার কাছে এ দুটো পরিচয়ই গর্বের এবং গুরুত্বপূর্ণ আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে এই শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক মাওলানা মাসুদুর রহমান, আলহাজ মাওলানা মুহাম্মাদ শাহিদ ইয়ামিন, কেজিএন মার্বেলের কর্ণধার ও সমাজসেবী আলহাজ সেখ সিরাজুল হক, বাংলার রেনেসাঁ পত্রিকার সম্পাদক আজিজুল হক, বসিরহাট পুরসভার কাউন্সিলর পরিমল মজুমদার, সরদার ইলিয়াস আলি, প্রতিষ্ঠানের সভাপতি সেখ মফিজুল হক, সম্পাদক এস কে হাবিব প্রমুখ। এদিন শিক্ষার্থীদের গান, কবিতা ও ক্যুইজ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মিশনের শিক্ষকরা।
নার্সারী বিভাগ থেকে মাধ্যমিক পর্যস্ত উন্নত মানের শিক্ষা পরিষেবা দিতে আল আকসা একাডেমি বদ্ধপরিকর । সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশের মধ্যে পৃথক পঠনপাঠন কক্ষ ও তিনতলা বিশিষ্ট প্রায় সাতহাজার বর্গফুট জুড়ে ভবনে আবাসিকদের থাকার ব্যবস্থা রয়েছে। রয়েছে উচ্চ গুণমানের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও আদর্শ শিক্ষার পরিবেশ। নবপর্যায়ে এই প্রতিষ্ঠানটি মেধাবী ও সম্পন্ন ঘরের ছেলেমেয়েদের সঙ্গে গরিব ছাত্রদের দিকেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবে বলে জানান আল আকসা একাডেমির সভাপতি জনাব সেখ মফিজুল হক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only