বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯

ওয়াইসির নিশানায় কাশ্মীর-ফেরত ইইউ সাংসদরা

মিম সুপ্রিমো আসাদউদ্দিন ওয়াইসির নিশানায় কাশ্মীরে আসা ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাংসদরা। তিনি বলেন, ‘হিটলারকেও জনগণই নির্বাচন করেছিল।' কাশ্মীর পরিস্থিতি দেখতে এসেছিলেন ২৭জন ইইউ এমপি। কেন্দ্র নির্ধারিত পথে উপত্যকা ঘুরে দেখেন তাঁরা। বুলেটপ্রুফ গাড়িতে কেন্দ্রের নির্ধারিত কর্মসূচি, দেশের সাংসদদের ঢুকতে না দিয়ে– বিদেশি সাংসদদের সাদরে কাশ্মীর ঘোরানোতে অনেকেই প্রশ্ন তোলেন। ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের ওই বাছাই করা সাংসদদের বেশিরভাগের মুখে ছিল কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের প্রশংসা। এবার অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন সুপ্রিমো তথা সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসির নিশানায় ইইউ সাংসদরা। কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘ইইউ সাংসদদের বিচারধারা মিল খায় হিটলারের সঙ্গে। তিনিও ইসলামবিরোধী ছিলেন।’

সাংসদের প্রশ্ন, ‘এই ২৭জন  সাংসদদের ভ্রমণের খরচ কি বিদেশ মন্ত্রক দিয়েছে’? এই একই ইস্যুতে এর আগে ওয়েইসি কেন্দ্রকে বিঁধতে হাতিয়ার করেছিলেন জনপ্রিয় একটি হিন্দি গানকে। টু্যইটারে তিনি লেখেন– ‘গ্যারো পর করম– আপনো পর সিতম– এ জানে বফা এ জুল্ম না কর। রহনে দে অভী থোড়া সা ধরম’। 

ইইউ সাংসদদের নাৎসি বলায় জবাব দিয়েছেন এক সাংসদ। থিয়রে মারিয়ানি বলেন, আমরা নাৎসিবাদী নই। তাহলে আমরা নির্বাচিত হতাম না। আমাদের নাৎসিপ্রিয় বলায় আমরা অত্যন্ত ত্রুদ্ধ।' তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা আমার অতীত দেখুন। যদি নাৎসিই হতাম তাহলে ১৪বার সাংসদ নির্বাচিত হতাম না। তাই অনুরোধ, দোষ দেওয়ার আগে আমার বায়োগ্রাফি দেখুন। কেউ কেউ তো বলছে, আমাদের মধ্যে ইসলামোফোবিয়া কাজ  করছে। এটা একদমই সত্য নয়।'

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only