মঙ্গলবার, ১ অক্টোবর, ২০১৯

দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর ইসলাম গ্রহণ করে আমিরাতে পাড়ি, কারণ জানলে চমকে উঠবেন


১৯ বছরের খ্রিস্টান তরুণীকে অপহরণ করে 'জঙ্গি' সংগঠনে যোগ দিতে বাধ্য করা হয়েছে। সংবাদমাধ্যমে এমনই প্রচার হচ্ছিল। রবিবার যাবতীয় জল্পনা নস্যাৎ করে দিলেন সিয়ানি বেনি নিজেই। স্বেচ্ছায় আবুধাবি গিয়ে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেছেন বলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি। এখন তার নাম অবশ্য আয়েশা। যারা তার নামে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে, ভারত সরকারের কাছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টা পর্যন্ত দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস করেছিলেন বেনি। দুপুর পৌনে তিনটেয় গো এয়ারের বিমানে আবুধাবি উড়ে যান তিনি। বেনির দাবি, প্রেমিককে বিয়ে করতেই সেখানে গিয়েছেন তিনি। কোনো 'জঙ্গি' সংগঠনে যোগ দিতে নয়। ৯ মাস সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই ব্যক্তির সঙ্গে তার আলাপ হয়।বেনির বাড়ি কেরলের কোঝিকোড়ে। উগ্রবাদী সংগঠন আইএসে যোগ দেয়ার জন্য মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে বলে দিল্লিতে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বেনির বাবা-মা। এরপরেই প্রকাশ্যে মুখ খুলেছেন ওই তরুণী। সাফ জানিয়েছেন, ‘আমি ভারতের একজন সাবালক নাগরিক এবং আমার ব্যাপারে আমি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারি। কেউ আমাকে জোর করেনি।’বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন, কেরল এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠিও দিয়েছেন তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only