মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯

কাজে এল না চিকিৎসা, গণপিটুনিতে ছটফটিয়ে প্রাণ গেল যুবকের


গবাদি পশু চোর সন্দেহে গণপিটুনির শিকার এক যুবক। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য বিহারের পাটনার মোকামা এলাকায়।
পুলিশ সূত্রে খবর– সোমবার রাতে বারাহপুর গ্রামের কিছু যুবক গবাদিপশু চোর সন্দেহে যুবককে মারধর করে। অন্যদিকে– স্থানীয় সূত্রে খবর– সোমবার রাতে পশু চুরির উদ্দেশ্যে আসে বেশ কয়েকজন দুষ্কূতী। কিন্তু গ্রামবাসীদের ঘুম ভেঙে যায়। তারপরই পশুচোর সন্দেহে তাদের তাড়া করে। বাকিরা পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে যায় একজন। গ্রামবাসীরা শুরু করে মারধর। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। মারমুখী জনতার হাত থেকে রক্তাক্ত অবস্থায়  উদ্ধার করে ওই যুবককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। যদিও শেষরক্ষা হয়নি। মাতলু বিন্দ নামে মৃত ওই যুবক বারাহপুর গ্রামেরই বাসিন্দা। ঘটনার জেরে ১২-১৫জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।
সম্প্রতি এনসিআরবি-র রিপোর্টে হিংসাত্মক রাজ্য হিসাবে উঠে আসে নীতীশের বিহারের নাম। যদিও ভারতে গণপিটুনিতে খুনের সংখ্যা কত– তা নিয়ে এবারও নিজেদের রিপোর্টে উল্লেখ করেনি এনসিআরবি। রিপোর্ট অনুযায়ী– দেশে গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনা কমেছে। তবে সংঘর্ষের তীব্রতা কমেছে। 
নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর গণপিটুনিতে মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে অহরহ। অথচ ২০১৬-র পরিস্থিতি নিয়ে এনসিআরবি-র রিপোর্টে সেই তথ্য ছিল না। একই পরিস্থিতি ২০১৭-র রিপোর্টেও। ওই তথ্য প্রকাশিত না হওয়ায় হতবাক এনসিআরবি কর্মীদের একাংশই।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only