মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

দেশজুড়ে একদিনের ব্যাংক ধর্মঘটে ভোগান্তি গ্রাহকদের



চিন্ময় ভট্টাচার্য

মঙ্গলবার দেশজুড়ে ডাকা একদিনের ব্যাংক  ধর্মঘট এরাজ্যে পুরোপুরি সফল। সাংবাদিক বৈঠকে একথা জানিয়েছেন, রাজ্যে ব্যাংক কর্মচারী সংগঠন বিইএফআইয়ের সাধারণ সম্পাদক জয়দেব দাশগুপ্ত। তিনি বলেন, 'এদিন কলকাতা-সহ গোটা রাজ্যে সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের দরজা খোলেনি। ধর্মঘটের প্রভাবে এটিএম পরিষেবাও বিঘ্নিত হয়েছে।' তবে দীপাবলি এবং ধনতেরসের আগে ব্যাংক ধর্মঘটে সাধারণ মানুষের কিছুটা সমস্যা হয়েছে বলে, মেনে নিয়েছেন জয়দেববাবু। তিনি বলেন, 'রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এই ধর্মঘট পালন করছে দু'টি ব্যাংক সংগঠন ব্যাংক এমপ্লয়িজ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (বিইএফআই) এবং অল ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (এআইবিইএ)। ধর্মঘট করা ছাড়া উপায় ছিল না।'

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো সংযুক্তিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগেই কয়েকটি ব্যাংকের সংযুক্তিকরণ হয়েছে। ব্যাংক সংযুক্তিতে আখেরে ক্ষতি হচ্ছে সাধারণ গ্রাহকের। যা ব্যাংক সংগঠনগুলো কখনই মানবে না-বলে জানিয়েছেন বিইএফআইয়ের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক। তিনি আরও বলেন, 'মোদি সরকার প্রতিদিন ব্যাংকের সুদ কমাচ্ছে। যার ফলে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ছেন অবসরপ্রাপ্ত মানুষ। মোদি সরকারের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদেই মঙ্গলবার দেশজুড়ে এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে।'

এইবিইএর সভাপতি রাজেন নাগা এই প্রসঙ্গে বলেন, 'ব্যাংক যেভাবে সংযুক্তিকরণ করা হচ্ছে,   তাতে শুধু কর্মীরাই নন, গ্রাহকদেরও নানারকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। এর প্রতিবাদেই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। এরাজ্যেও ভালো সাড়া পড়েছে। রাজ্যের প্রায় সব এটিএম বন্ধ রয়েছে। সাময়িক অসুবিধা হলেও সংযুক্তিকরণের মাধ্যমে বেসরকারিকরণের যে উদ্যোগ লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তার প্রতিবাদে এই ধর্মঘট।'

তবে, ধর্মঘটী দুই সংগঠনে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া বা এসবিআইয়ের কর্মী-অফিসারদের  সংখ্যা খুবই কম বলে কার্যত এই ব্যাংকের পরিষেবায় কোনও প্রভাব পড়েনি। এদিন সকাল থেকেই অধিকাংশ ব্যাংকের সামনে ধর্মঘটীরা জড় হয়েছিলেন। ধর্মঘটে সামিল হয়েছেন এটিএম পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরাও। যেসব এটিএম খোলা ছিল, সেখানে টাকা না-থাকার অভিযোগ করেছেন সাধারণ গ্রাহকরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only