বুধবার, ২ অক্টোবর, ২০১৯

অস্ত্রের গুদাম বানিয়েছে বেইজিং

৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে পেশি প্রদর্শন করে দুনিয়াকে চমকে দিল চিন। তিয়েনআনমেন স্কয়ারকে রীতিমতো অত্যাধুনিক অস্ত্রের গুদাম বানিয়ে ফেলে ছিল বেজিং।এদিনের প্যারেডে দেখা গিয়েছে চিনের তৈরি নিত্য নতুন অস্ত্র। এগুলি মধ্য বেশ কয়েকটি ভয়ঙ্কর অস্ত্র।


এদিন প্যারেডে প্রদর্শিত হয় অস্ত্রগুলি। অস্ত্রগুলির মধ্যে সবচেয়ে ভয়ংকরতম ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ডংফেং-৪১কে। এটিকে বলা হচ্ছে ইতিহাসের অন্যতম ভয়ংকর অস্ত্র। সামরিক বিশ্লেষক এই ক্ষেপণাস্ত্রটি পৃথিবী ধ্বংসী অস্ত্র বলেও অভিহিত করছেন। এই গ্রহের শক্তিশালীতম ক্ষেপণাস্ত্রটির রেঞ্জ ৯,৩০০মাইল।পৃথিবীর কোনো আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রই এতোটা দূরত অতিক্ষম করতে সক্ষম নয়। এই অস্ত্রটি প্রতি ঘণ্টায় ৭,৬৭২ মাইল গতি তুলতে সক্ষম। এটিও কোনো ক্ষেপণাস্ত্রের জন্য সর্বোচ্চ গতিসীমা। নতুন ক্ষেপণাস্ত্রটি মাত্র ৩০ মিনিটে আমেরিকার আঘাত হানতে সক্ষম।


তবে এই প্যারেডে প্রদর্শিত একমাত্র অস্ত্র ডংফেং-৪১ নয়। এই প্যারেডের আরো একটি ভয়ঙ্কর অস্ত্র হলো ডংফেং-১৭। এটি একটি পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম গ্লাইডার। বিদেশি বিশ্লেষকরা বলছেন এটি নকশা করা হয়েছে উচ্চ গতিতে ম্যানুভার করে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য


 এই প্যারেডে প্রদর্শিত ৪০ শতাংশ অস্ত্র প্রথমবারের মতো জনসমক্ষে আনা হয়েছে। তবে ডংফেং৪১ এই প্যারেডের একমাত্র আন্ত:মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র ছিলো না। এদিন প্রদর্শিত হয়েছে ডংফেং-২১জি আন্ত:মহাদেশীয় ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রও।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only