মঙ্গলবার, ১ অক্টোবর, ২০১৯

খাসোগি খুনের তথ্য ধামাচাপা দিতেই না কী দেহরক্ষীকে খুন



 সম্প্রতি ব্যক্তিগত বচসার জেরে খুন হয়েছেন সৌদি বাদশাহর দেহরক্ষী আদুল্লাজিজ-আল-ফাঘাম।শনিবার জেদ্দায় এক বন্ধুর হাতেই খুন হতে হয়েছে তাকে।কিন্তু ফাঘামের খুন নিয়ে এখন পশ্চিমা মিডিয়া নানা ধরণের জল্পনা করা হচ্ছে।সম্প্রতি ব্রিটিশ সংবাদসংস্থা ডেইলি মেল একটি প্রতিবেদনে দাবি করেছে, খাসোগি হত্যার তথ্য ধাপাচাপা দিতেই হয়ত ফাগামকে হত্যা করা হয়েছে।

তাদের দাবি, খুন হওয়ার দুদিন আগেই চাকরিচ্যুত করা হয়ে ছিলেন আল-ফাগাম।তার কাছে সাংবাদিক জামাল খাসোগি নৃঃশস হত্যাকাণ্ড সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ছিল। কিন্তু সৌদি কর্তৃপক্ষের থেকে জানানো হয়েছে, শনিবার সন্ধ্যেয় জেদ্দায় নিজের বন্ধুর বাড়িতে অপর এক বন্ধু সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে ছিলেন ফাগাম। এরপর বাইরে বেরিয়ে যান ওই বন্ধু। কিছুক্ষণ পর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ফিরে এসে ফাগামকে হত্যা করেন ওই বন্ধু। তাতে পাঁচ পুলিশ সহ বাড়ির মালিক ও তাদের ফিলিপিনো পরিচারক আহত হন।

মুজতাহিদ নামে সৌদি নাগরিক একটি টুইটবার্তায় দাবি করেছেন, রাজপ্রাসাদের ভিতরেই হত্যা করা হয়েছে ফাগামকে। কিন্তু দাবি করা হচ্ছে তাঁর বন্ধুর হাতে খুন হয়েছেন।তার দাবি, এই সংক্রান্ত বিশদ তথ্য খুব শীঘ্রই ফাঁস করা হবে।

এর আগে সৌদি আরবের নির্বাসিত রাজনীতিক ড. মুহাম্মদ আল মাসায়ারি সতর্ক করে দিয়ে বলে ছিলেন, ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান বাদশাহর দেহরক্ষী আল-ফাগামকে হত্যা করতে পারে। কারণ এই দেহরক্ষীর ওপর আস্থা রাখতে পারছে না সৌদি রাজপরিবার। তাকে হত্যা করে মার্কিন ব্ল্যাক ওয়াটারকে বাদশাহর নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়ার চক্রান্ত চলছে। এই দাবি কয়েক মাসের মাথায় খুন হলে ফাগাম।

এদিকে এক সাক্ষাৎকারে খাসোগির হত্যার দায় শিকার করেছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান। যদিও তিনি দাবি করেছেন, তার অজ্ঞাতসারেই এখন ঘটনা ঘটানো হয়ে ছিল। তিনি সেখানে বলেছেন, সৌদি নিরাপত্তাবাহিনী পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করার সময় তার অজানতেই সৌদি নিরাপত্তাবাহিনীর আধিকারিকরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটান। তাই সমস্ত ঘটনার দায় তাঁর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only