সোমবার, ৪ নভেম্বর, ২০১৯

শরীরের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত এনআরসি হতে দেবো নাঃ অনুব্রত মণ্ডল


পুবের কলম ডিজিটাল ওয়েব ডেস্ক : " শরীরের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত এনআরসি হতে দেবো না", সোমবার বীরভূমের সিউড়িতে এক বিজয়া সম্মিলনীতে এসে  এরকমই মন্তব্য করলেন তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। পাশাপাশি গত লোকসভা নির্বাচনে উল্লেখযোগ্যভাবে ভোট কমেছিল তৃণমূল কংগ্রেসের তা ফেরাত পেতে সাংগঠনিক কর্মসূচি দিলেন দলীয়  নেতৃত্বদের। 

কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের এনআরসির বিল নিয়ে ফের সোচ্চার তৃণমূল নেতৃত্ব। এদিন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল কেন্দ্রীয় সরকারকে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন আমাদের শরীরের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত আমরা এনআরসি কোনভাবেই হতে দেবো না। রাজ্যের যতদিন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থাকবে ততদিন কোনভাবেই কেন্দ্র এনআরসি এরাজ্যে লাগু করতে পারবে না। আমরা সর্বতোভাবে এই কালা কানুন রুখব।  বহু সাধারণ মানুষ আছে আদিবাসী আছে যারা অন্যের জায়গাতে বসবাস করে তাদের কোন নিজস্ব কাগজপত্র কিছু নেই তারা কি এদেশে থাকতে পারবে না। কোনভাবেই সেটা সম্ভব নয়। এই দেশ সবার। পৃথিবীর বহু দেশেই এই আইন থাকলেও ভারতের মতো কালা কানুন কোথাও নেই। বাংলায় যতদিন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থাকবেন ততদিন কারো চিন্তা নেই"।

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের উল্লেখযোগ্যভাবে ভোট কমে ছিল, তাই মেরামতি করতে উদ্যোগী হয়েছে বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত বীরভূমের এগারটি বিধানসভা এবং বর্ধমানের তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রের বুথ ভিত্তিক কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও এদিন জেলার লোহাপুর এলাকার বর্ষীয়ান নেতা শেখ গিয়াসউদ্দিনকে পুনরায় জেলা কমিটিতে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। তিনি শারীরিক অসুস্থতার কারণে বহুদিন রাজনৈতিক কর্মসূচি থেকে দূরে ছিলেন। শরীর ঠিক হতেই থাকে ফিরিয়ে আনা হলো। অন্যদিকে স্বরূপ গড়াইয়ের স্ত্রীকে বিজেপির দেওয়া চেক প্রসঙ্গে অনুব্রত মণ্ডল বলেন," ওই পরিবার কোনদিনই বিজেপির ছিলনা। বিজেপির লাশ নিয়ে রাজনীতি করেছিল। তাই ওনার স্ত্রী চেক ফেরত দিয়েছে"।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only