রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯

বাগদার সিন্দ্রানীতে সংঘর্ষ, হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে পথ অবরোধ



পুবের কলম প্রতিবেদক, বনগাঁ : উত্তর ২৪ পরগণার বাগদা থানা এলাকার সিন্দ্রানীতে মারধর ও সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে রবিবার স্থানীয় বাসিন্দারা বনগাঁ-দত্তপুলিয়া রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন।  পুলিশের কাছে নির্দিষ্ট অভিযোগ সত্ত্বেও আক্রমণকারী দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার  করা হচ্ছে না বলে বিক্ষোভকারীরা জানান। এদিন সকাল ৯টা থেকে অবরোধ শুরু হয় এবং পুরুষ ও মহিলারা প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে বিক্ষোভ অংশগ্রহণ করেন। এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে অবরোধ চলার পরে অবশেষে বাগদা থানার পুলিশ এসে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আক্রমণকারীদের গ্রেফতারের প্রতিশ্রুতি দিলে অবরোধ উঠে যায়৷

সিন্দ্রানী গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য সৌমেন ঘোষ জানান, শুক্রবার রাতে স্থানীয় এক ক্লাবের পিকনিককে কেন্দ্র গোলযোগের সূত্রপাত। এসময় বিজেপি আশ্রিত বহিরাগত মানুষজন ক্লাব সদস্যদের সঙ্গে বচসা ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে এবং পরবর্তীতে তা সংঘর্ষের রূপ নেয়। ক্লাবের ছেলেরা  যাদের মধ্যে অনেকেই ছাত্র, তাদেরকে মারধর করা হলে বেশ কয়েকজন  আহত হয়। পুলিশ অপরাধীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় এলাকার সাধারণ মানুষজন পথ অবরোধ করে। পরে পুলিশি পদক্ষেপের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

সৌমেন বাছাড় নামে আক্রান্ত এক যুবক বলেন, তিনি ও তাঁর চার বন্ধু শুক্রবার রাতে সিন্দ্রানী থেকে বাজিতপুরের দিকে যাওয়ার সময় ৮ দুষ্কৃতী তাঁদের উপরে ধারালো অস্ত্র, দা, লাঠিসোটা ইত্যাদি নিয়ে আক্রমণ করে।  এরফলে তারা গুরুতর আহত হলে চিকিৎসার জন্য বাগদা হাসপাতালে যেতে হয়। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে অন্যত্র স্থানান্তর করা হয়। এব্যাপারে হরিমোন বাকচি, নয়ন বিশ্বাস, নিধির বিশ্বাস, তুষার রায়, রিপন মজুমদার, মিলন বাইন, খোকন মজুমদার, হীরামোন বাকচির বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, কিছুদিন আগে আসা ‘বাংলাদেশি  অনুপ্রবেশকারীরা’ এই এলাকায় গোলযোগ ও অশান্তি সৃষ্টি করছে। এর আগেও তারা বিভিন্ন অসামাজিক কাজকর্মে যুক্ত ছিল। পঞ্চায়েত সদস্য সৌমেন ঘোষ বলেন, বাংলাদেশি ওই অনুপ্রবেশকারীরা বিজেপির মদদে এলাকায় অসামাজিক কাজকর্ম চালাচ্ছে। অবিলম্বে অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশকে পদক্ষেপ নিতে হবে বলেও তাঁর দাবি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only