শুক্রবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৯

গডসেকে দেশভক্ত বলায় প্রজ্ঞাকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার হুমকি কংগ্রেসের


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: বিতর্কিত মন্তব্য করায় প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার হুমকি দেন কংগ্রেস বিধায়ক। তবে তার এই বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তিনি শুক্রবার সংসদে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন।
ভোপালের বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর সংসদ ভবনে দাড়িয়ে নাথুরাম গডসেকে দেশভক্ত বলায় বিকর্কের মুখে পড়ে যান তিনি।
তার এই মন্তব্যের পরে ক্ষবে ফেটে পড়ে বিরোধীরা। পাল্টা উত্তর দিতে ছাড়েননি কংগ্রেস বিধায়ক গোবর্ধন ডাংরি। তিনি বলেন, মধ্যপ্রদেশে ঢুকলে জ্যন্ত পুড়িয়ে মেরে দেওয়া হবে।
এর আগে, সংসদের নিম্নকক্ষে এসিপিজি বিল নিয়ে আলোচনার সময় তিনি ফের বলেন, নাথুরাম গডসে একজন দেশভক্ত। অর্থাৎ মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী একজন দেশপ্রেমিক। স্পিকার তার এই কথা কার্যবিবরণী থেকে বাদ দিয়ে দেন। যদিও প্রজ্ঞার দাবি, তিনি দেশভক্ত উধম সিংকে বলেছেন, গডসেকে নয়। এ কথা শুনে তীব্র প্রতিবাদে ফেটে পড়েন বিরোধীরা। কংগ্রেস বলে, অত্যন্ত নিন্দনীয় মন্তব্য।
এর আগে লোকসভায় এসপিজি বিল বিতর্কের সময় বলতে ওঠেন ডিএমকের এ রাজা। তিনি গডসের একটা মন্তব্য তুলে ধরে বলেন, গডসে কেন গান্ধীকে হত্যা করেছিল, তা সে নিজেই বলে গেছে। তার বক্তব্য শেষ হওয়ার আগেই থামিয়ে দেন প্রজ্ঞা। বলেন, আপনি একজন দেশভক্তের উদাহরণ এ ক্ষেত্রে দিতে পারেন না। ডিএমকের রাজা পাল্টা বলেন, গডসে নিজেই বলেছে, তার গান্ধীর ওপর রাগ ছিল। সেই রাগ সে ৩২ বছর ধরে পুষে রেখেছিল। গডসে গান্ধীকে হত্যা করেছিল, কারণ গডসে একটি নির্দিষ্ট মতাদর্শের সমর্থক।
সম্প্রতি প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের উপদেষ্টা কমিটির সদস্য করা হয়েছিল প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকে। গডসে নিয়ে মন্তব্য করায় সেই পদ থেকে তাকে অপসারিত করার প্রস্তাব করেন বিজেপির কার্যকরী সভাপতি জেপি নাড্ডা। এ ছাড়াও তিনি জানিয়েছেন, সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, অধিবেশন চলাকালীন বিজেপির সংসদীয় বৈঠকেও যোগ দেবেন না প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only