শনিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৯

৯ বছরেই স্নাতক! জানুন এই বিস্ময় বালককে



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক, ব্রাসেলস: বয়স মাত্র ৯ বছর। এই বয়সেই সে স্নাতক হতে চলেছে। ডিসেম্বরে ফাইনাল পরীক্ষা। তিন বছরের স্নাতক স্তরের সিলেবাস শেষ করতে সময় লেগেছে মাত্র ৯ মাস। মাত্র ৮ বছর বয়সে সেকেন্ডারি বা মাধ্যমিক পরীক্ষা দেয় এই বিস্ময় বালক। ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে আগামী মাসে থার্ড ইয়ার পরীক্ষা দেবে এই খুদে জিনিয়াস লরেন্ট সিমন্স। সবথেকে উল্লেখ্যযোগ্য হল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পাশাপাশি মেডিক্যাল নিয়েও পড়াশোনা করছে সে। 
ইতিমধ্যে তাকে ইউরোপের বিস্ময়-বালক উপাধি দিয়েছে বেলজিয়ামের ইন্দহোভেন ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি। অনেকেই অ্যালবার্ট আইনস্টাইন এবং স্টিফেন হকিংয়ের সঙ্গে তুলনা করেছেন তাকে। অনেকে আবর এই দুই কিংবদন্তী বিজ্ঞানীর থেকেও মেধাবী বলে অভিহিত করেছেন। ইংরেজি সহ ৪টি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারে সিমন্স।
তারা বাবা আলেকজান্ডার সিমন্স পেশায় দন্ত চিকিৎসক। সিএনএন'কে সাক্ষাতকারে তিনি জানিয়েছেন, স্নাতক হওয়ার পর পিএইচডি করতে চায় সিমন্স। ডিসেম্বরে স্নাতক ফাইনাল ইয়ার কমপ্লিট হয়ে সসম্মানে উত্তীর্ণ হলে বেলজিয়ামের সবথেকে কনিষ্ঠতম গ্র্যাজুয়েট হিসাবে স্বীকৃতি পাবে সে। এর আগে এই রেকর্ড ছিল আমেরিকার আলাবামা ইউনিভার্সিটির ছাত্র মিশেল কারনি-র। ১০ বছর বয়সে সে গ্র্যাজুয়েশন কমপ্লিট করেছিল। 
এদিকে সিমন্স-এর ইচ্ছে হল, ভবিষ্যতে মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে কাজ করা। উল্লেখ্য বেলজিয়াম বংশোদ্ভূত সিমন্স পবিবার নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডমে বসবাস করেন। তাই লরেন্ট যা কিছু রেকর্ড করবে একই সঙ্গে দুই দেশের মুখ উজ্জ্বল হবে বলে গর্ববোধ করেন তার বাবা। তার আইকিউ লেভেল টেস্ট করে দেখা গিয়েছে ১৪৫। তার মা লিদিয়া সিমন্স বলেন, শৈশব থেকেই তার ব্যাতিক্রমী প্রতিভা ও মেধার পরিচয় পাওয়া যায়। বরাবরই ওর স্মৃতিশক্তি ভীষণ প্রখর। এখন তার ইনস্টাগ্রামে ১১ হাজারেরও বেশি ফলোয়ার আছে বলে জানান তার মা।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only