শনিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৯

তোলাবাজির নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, জখম এক



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক, রামপুরহাট: রাস্তা নিয়ে দুই পক্ষে মারামারির জেরে জখম এক। গুরুতর জখম অবস্থায় এক ব্যক্তিকে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুই পক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের পাইকর থানার নয়াগ্রামে। মিত্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীনে ওই গ্রামে রয়েছেন, দুজন সদস্য। একজন আভেদ আলি, অন্যজন বাবুল আকতার ওরফে আপেল।
জানা গিয়েছে, শুক্রবার গ্রামের বদির পাড়ায় রাস্তায় ঢালাইয়ের কাজ চলছিল। এনিয়ে উত্তেজনা ছড়ায়। অভিযোগ আপেলের লোকজন বার বার কাজের এলাকায় গিয়ে হুমকি দিয়ে আসে। সন্ধ্যার দিকে বাড়ি ফেরার পথে আভেদের ভাই জাইতারুল শেখকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

তাকে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আপেল বলেন, 'অঞ্চল সভাপতি বকুল শেখের সঙ্গে কাজের বিষয়ে মনোমালিন্য চলছে। সেই কারণে আমার সংসদ এলাকার কাজ তার কাছের লোকদের দিয়ে করাচ্ছিলেন। এলাকায় বাড়ি নির্মাণের নামে বেনিফিসিয়ারিদের কাছ থেকে তোলা নিচ্ছিলেন।

জাইরুল অঞ্চল সভাপতির কাছের লোক। সেই টাকা তুলছিল। উন্নয়নে কোন বাধা আমরা দিইনি।বাধা দিলে রাস্তার কাজ সম্পূর্ণ হত না।

উনি অঞ্চল সভাপতি হলেও পক্ষপাতিত্ব করছেন, বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি”। জাইতারুল শেখ বলেন, “আপেল শেখ দীর্ঘদিন থেকে দল বিরোধী কাজ করছে। রাস্তার কাজ নিয়ে বাধা দিচ্ছিল। পার্টি অফিসে বাঁশ কেটে রেখেছিল। সন্ধ্যার সময় কাজ সেরে বাড়ি ফিরতেই প্রথমে গালাগালি, তারপর অফিস থেকে বাঁশ নিয়ে মারধর করে। আমার মাথায় আঘাত করে। আমরা কারও কাছে বাড়ির টাকা নিইনি। মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে”।

তবে গ্রামের বাসিন্দা মিরাজুদ্দিন শেখ বলেন, “জাইতারুল শেখ তাঁর কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা নিয়েছে”।

অঞ্চল সভাপতি বকুল শেখ বলেন, “আপেল দীর্ঘদিন থেকে দলবিরোধী কাজের সঙ্গে যুক্ত। সদ্য সমাপ্ত সমবায় নির্বাচনে বিজেপির হয়ে কাজ করেছে। বিষয়টি আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। দল তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে”।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only