বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯

তীব্র খরার ফলে জিম্বাবুয়তে প্রায় ২০০ হাতির মৃত্যু


পুবের কলম, ওয়েব ডেক্স: তীব্র খরার কারণে জিম্বাবুয়ে অবস্থিত সর্ববৃহৎ ন্যাশনাল পার্কে গত সেপ্টেম্বর মাস থেকে এখনও পর্যন্ত প্রায় ২০০ হাতির মৃত্যু হয়েছে বলে আত্নর্জাতিরক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে।

এই খরার কারণে ন্যাশনাল পার্ক ছাড়াও অন্যান্য বনভূমিতে বিভিন্ন প্রজাতির পশু পাখির মৃত্যু হচ্ছে।

জিম্বাবুয়ে পার্ক ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সংস্থার কর্ণধার তানাশে ফারাও বলেন, বৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করা অসম্ভব।

তিনি বলেন, তীব্র খরার ফলে বেশ কিছু প্রজাতির প্রাণী ক্ষতিগ্রস্তের সম্মখিন হয়েছে। এবং কয়েক প্রজাতির পাখিও ক্ষতি হয়েছে বলে সূত্র থাকা জানা যায়।

দুর্যোগের ফলে বন্য পশুরা পর্যাপ্ত পরিমানে খোরাক না পাওয়ায় তারা  খাবার ও পানির খোঁজে জনবসতি পূর্ণ এলাকায় হানা দিচ্ছে। তার ফেল আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে এলাকার জনসাধারণরা। এর ফলে স্থানীয়দের আক্রমণের শিকার হচ্ছে অনেক পশু। আক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে স্থানীয়দের পাল্টা আক্রমণ করছে বন্যপশুরাএর ফলে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩৩ জন স্থানীয় বাসিন্দার মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, ৬০০ হাতি, দুই প্রজাতির সিংহ ও অন্য কয়েকটি প্রাণীকে দেশটির দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত সেভ ভ্যালি কনজারভেন্সি থেকে কমসংখ্যক প্রাণী আছে এমন পার্কে স্থানান্তরের পরিকল্পনা রয়েছে সংস্থাটির।

একদল বন্য কুকুর, ৫০টি মহিষ, ৪০টি জিরাফ এবং দুই হাজার হরিণকেও অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে। জিম্বাবুয়েতে আনুমানিক ৮৫ হাজার হাতি রয়েছে, যা সংখ্যার দিক থেকে প্রতিবেশী দেশ বতসোয়ানার পর দ্বিতীয় বৃহত্তম।

বর্তমানে প্রাণীগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বছরে ৪০ মিলিয়ন ডলার দরকার, কিন্তু তার মাত্র অর্ধেক জোগাড় হয়েছে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only