শুক্রবার, ৮ নভেম্বর, ২০১৯

কুয়েতেও ছাড়াচ্ছে সরকার বিরোধী বিক্ষোভের আঁচ



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক, কুয়েত সিটি: এবার লেবানন ও ইরাকে সরকার বিরোধী বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়ল কুয়েতেও। দুর্নীতি, বেকারত্ব ও মৌলিক অধিকারের দাবিতে এখন ফুঁসছে কুয়েতি জনগণ। বুধবার থেকে রাজধানী কুয়েত সিটি-তে ইরাদা স্কয়ারে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। সেখান থেকে স্পিকার মারজুক আল গানিম-এর পদত্যাগের আহ্বান জানানো হয়।

জানা গিয়েছে, স্পিকারের বিরুদ্ধে অন্যান্য আইনপ্রণেতারাও দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছে।একজন প্রাক্তন আইনপ্রণেতা সালেহ আল-মোল্লার নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ সংঘটিত হচ্ছে। তিনি বিষয়টি নিয়ে জনতাকে একজোট করার জন্য সোস্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মকে হাতিয়ার করেন।

মোল্লা জানিয়েছেন, জনগণের পক্ষ থেকে একটি বার্তা এবং দুর্নীতির মুখে জনগণের অসুখী থাকার বহিঃপ্রকাশ।প্রতিবেশী দেশ লেবানন এবং ইরানের সরকার বিরোধী বিক্ষোভ দেখেই কুয়েতবাসীও সরকারের দুর্নীতির বিরোধীতায় আন্দোলনে নেমেছে।

এক বিক্ষোভকারী আহমেদ আল ধোওয়াইহি বলেন, সরকার যাতে জনতার অর্থ চুরি না করে তাই আমরা আন্দোলনে নেমেছি।আমাদের স্বপ্ন এবং আশাকে চুরি করছে তারা। আরও এক আন্দোলনকারী আবদেররহমান হাসান আল কাতাইবি বলেন, আমরা দেশে স্থিতিশীলতা চাই।

মানবাধিকার বিষয়ক এক আইনজীবী মুহাম্মেদ আল-হুমাইদি জানান, এই বিক্ষোভে কোন রাজনৈতিক রং নেই। জনতা তাদের মৌলিক অধিকারগুলির দাবিতে আন্দোলন শুরু করছে। স্বাস্থ্য, গৃহ, শিক্ষা খাতে দুর্নীতি বিরুদ্ধে লড়তেই এই কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, মধ্যপ্রাচ্যে ফের আরব বসন্ত আসার সম্ভবণা বাড়ছে। মিসর, মরক্কো, আলজেরিয়া, সুদান, লেবানন থেকে ইরাক-মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার দেশগুলিতে নাগরিক অধিকারের দাবিতে তৈরি আন্দোলনের এখনও শেষ হয়নি।আন্দোলন-বিক্ষোভের ধারাবাহিকতায় তিউনিশিয়া, আলজেরিয়া ও সুদানে দীর্ঘদিনের স্বৈরশাসকের পতন হয়েছে। 

মূলত আরব বসন্ত শুরু হয়েছিল তিউনিশিয়ায় ২০১০ সালে। দেশটির সরকারের ঘুষ, দুর্নীতি, বেকারত্ব, রাজনৈতিক নিপীড়ন ও স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে তা জ্বলন্ত বিদ্রোহ শুরু হয়। গণঅভ্যুত্থানে শেষ পর্যন্ত দেশটির তিন দশকের স্বৈরশাসক প্রেসিডেন্ট জয়নুল আবেদিন বেন আলির পতন ঘটে।এরপর বিদ্রোহের আগুন ছড়িয়ে পড়ে আরববিশ্বের অন্যান্য দেশেও- লিবিয়া, ইয়েমেন, বাহরাইন, ফিলিস্তিন, সিরিয়াসহ কয়েকটি দেশে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only