শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯

ভূমি ও ভূমি সংস্কারে বীরভূম সেরা, বললেন কৃষিমন্ত্রী


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক, রামপুরহাট:  ভুমি সংক্রান্ত শিবিরের আয়োজন হল গোটা জেলায়। বীরভূমের অন্যান্য এলাকাসহ রামপুরহাট ও মুরারই ব্লকে ভূমি সপ্তাহ পালিত হল। মুরারই-১ ব্লকের বিডিও নিশীথ ভাস্কর পাল জানান, জেলা জুড়েই এই ভূমি শিবির চলছে। ভূমিহীনদের পাট্টা দেওয়া ছাড়াও, ভূমি সঙ্ক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা শিবির হয় সাধারণ মানুষের প্রয়োজনে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুরারই বিধায়ক আব্দুর রহমান।  জানা গেছে,  দফতরের কাজ কর্মে বীরভূম জেলা রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। শুক্রবার রামপুরহাট কৃষক বাজারে ভূমি মেলার উদ্বোধনে এসে এই সাফলের কথা জানান কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন প্রদীপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে মেলার সূচনা করেন কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়। মেলা থেকে ৯০ জন ভূমিহীন মহিলার হাতে জমির পাট্টা তুলে দেওয়া হয়। তার মধ্যে ৫১ জনের হাতে বাস্তুভিটে দেওয়া হল ৫১ জনকে। ৩৯ জনকে কৃষি জমি দেওয়া হয়েছে। রামপুরহাট মহকুমার আটটি ব্লকে ২০৭ জনের হাতে পাট্টা তুলে দেওয়া হয় এদিন। বক্তব্য রাখতে গিয়ে পরিসংখ্যান দিয়ে আশিসবাবু বলেন, “জেলায় ২০১৭-১৮ সালে ১,৩০,৩৫৬ টি মিউটেশন হয়েছিল। ২০১৯-২০ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,৩০,২০১ টিতে। কনভারশন ওই আর্থিক বছরে ২০১৪ টি থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫১৭ টিতে। গত তিন বছরে পাট্টা বিলি করা হয়েছে ৯৪৮ জনকে। যার পরিমান ৮৭।৯২ একর। নিজ ভূমি নিজ গৃহ প্রকল্পে ১৪৯৭০ জনকে বাড়ি দেওয়া হয়েছে। জমির পরিমান ৪৮৬.১৮ একর। রাজস্ব আদায়ে হয়েছে একই আর্থিক বছরে ৯৮,০৭,৭২,৯১৬ টাকা। ২০১৯-২০ আর্থিক বছরে ১৫.১০.২০১৯ পর্যন্ত আদায় হয়েছে ৭৯,৯৫,০৫,৪২৯ টাকা”। অবশ্য এই সাফল্যের জন্য ভূমি ও ভূমি দফতরের অফিসারদের ভূয়সী প্রশংসা করেন আশিসবাবু। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রামপুরহাট মহকুমা ভূমি ও ভূমি আধিকারিক সুব্রত সরকার, রামপুরহাট ১ নম্বর ব্লকের সভাপতি শুভাশিস কর্মকার, সহ্য সভাপতি পান্থ দাস, জয়েন্ট বিডিও সুবীর রায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only