সোমবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৯

অশান্তির জের উপ নির্বাচনেও! বিজেপি প্রার্থী জয় প্রকাশকে কোমরে লাথি মেরে ফেলে দিল নর্দমায়


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: রাজ্যের তিনটি বিধানসভা আসনে উপ নির্বাচন চলছে। লোক সভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় ২টি আসন থেকে এক লাফে ১৮টি আসন নিজের পকেটে ঢুকিয়ে নিয়েছিল।

বিধায়ক প্রমথ নাথ রায়ের মৃত্যুর পরে কালিয়াগঞ্জের আসনটি খালি পড়ে রয়েছিল। এপ্রিল-মে মাসে নির্বাচনে দুই বিধায়ক (তৃণমূলের মহুয়া মৈত্র এবং বিজেপির দিলীপ ঘোষ) সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার এই দু'টি আসনও খালি হয়ে যায়। তাই সেখানে আবার উপ নির্বাচন করা হচ্ছে।

যে তিনটি আসনে উপ নির্বাচন চলছে তার সব জায়গা থেকেই অশান্তির খবর উড়ে আসছে। তবে মোদি-শাহ এই অশান্তির দায় পুরোটাই চাপাতে চাইছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে
তিনটি আসনের কোনটাতেই শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হতে দেখা যাচ্ছে না। যদিও আসনগুলি রয়েছে বিভিন্ন দলের হাতে। কালিগঞ্জ রয়েছে কংগ্রেসের হাতে, করিমপুর রয়েছে তৃণমূলের হাতে এবং খড়গপুর রয়েছে বিজেপির হাতে।

করিমপুরের বিজেপি প্রার্থী জয় প্রকাশ মজুমদারকে কোমরে লাথি মেরে রাস্তা থেকে পাশের ঝোপঝাড়ের মধ্যে ফেলে দেওয়াকে কেন্দ্র করে এলাকায় অশান্তি দেখা দেয়। বিজেপি প্রার্থী জয় প্রকাশের দাবি তৃণমূল কর্মীরায় তাকে আক্রমণ করেছেন। তিনি জানান, এই আক্রমণ থেকে স্পষ্ঠভাবে বুঝতে হবে 'বাংলায় গণতন্ত্রের অবসানের সুস্পষ্ট লক্ষণ'।

তিনি বলেন, এই আক্রমণে আমি একটুও দুঃখ পাইনি। আমি সমস্ত বুথ ঘুরে দেখব। নির্বাচন কমিশনের কাছে আমি অভিযোগ দায়ের করেছি।

জয়প্রকাশের কথার পাল্টা উত্তরে তৃণমূল জানান, জয়প্রকাশ নির্বাচনের পরিবেশে ব্যঘাত ঘটিয়েছেন। তাই তাকে এলাকাবাসীরা আক্রমণ করেছে।

ওপরদিকে, কালিয়াগঞ্জ আসনের একটি বুথে বিজেপি প্রার্থী তার স্ত্রীকে ভোট দিতে সাহায্য করার ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় সেই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারকে সাসপেন্ড করা হয়।
যদিও মাত্র তিনটি আসনে ভোটগ্রহণ হলেও, তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে এই উপনির্বাচনও সমান গুরুত্বপূর্ণ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে ক্রমশ প্রভাব বিস্তারকারী বিজেপির চাপের মুখেই রয়েছেন। রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে আর ১৮ মাস বাকি। এরই মধ্যে এই উপনির্বাচন সেই মূল নির্বাচনের ভাবগতিক বুঝতে সাহায্য করতে পারে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only