রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯

মুসলিমদের নিশানা করতেই এনআরসি, বিস্ফোরক মার্কিন কমিশন


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: এনআরসি নিয়ে এবার বিস্ফোরক প্রতিক্রিয়া দিল আমেরিকার এক কমিশন। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক এক যুক্তরাষ্ট্রীয় মার্কিন কমিশন রীতিমতো কড়া ভাষায় অভিযোগ করেছে– ‘অসমে এনআরসি হচ্ছে এমন একটি ব্যবস্থা যার মাধ্যমে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিশেষ করে মুসলিমদের রাষ্ট্রহীন করার চেষ্টা হচ্ছে।’ অর্থাৎ তাদের স্পষ্ট বক্তব্য, এনআরসি হচ্ছে অসমের বাঙালি মুসলিমদের ভোটাধিকার কাড়তে ও নাগরিকত্ব পাওয়ার ক্ষেত্রে একটি ধর্মীয় প্রয়োজনীয়তা প্রতিষ্ঠা করতে এবং মুসলিমদের রাষ্ট্রহীন করার উদ্দেশ্যে গৃহীত এক কর্মসূচি।
৩১ আগস্ট অসমে এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়। তাতে ১৯ লক্ষ মানুষের নাম বাদ যায়। তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ‘ইউএস কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম’ (ইউএসসিআইআরএফ)। শুক্রবার ইউএসসিআইআরএফ-এর তরফে বলা হয়, ‘একাধিক দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থা রীতিমতো উদ্বেগপ্রকাশ করেছে যে এনআরসি হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার লক্ষ্য হচ্ছে অসমের বাঙালি মুসলিম সম্প্রদায়কে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা এবং নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে সুস্পষ্টভাবে একটি ধর্মীয় প্রয়োজনীয়তা স্থাপন করা ও একটি বড় অংশের মুসলিমকে রাষ্ট্রহীন করে দেওয়া।’ আসলে মার্কিন এই কমিশনটি শুক্রবার ‘ইস্যু ব্রিফঃ ইন্ডিয়া’ (ভারতের মূল ইস্যুগুলি তুলে ধরা) প্রকাশ করেছে। সেখানে আরও বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের আগস্টে এনআরসি তালিকা প্রকাশের পরবর্তী সময়ে বিজেপি সরকার যে পদক্ষেপ করেছে, তা থেকে ‘মুসলিম বিদ্বেষী পক্ষপাতদুষ্ট’ মানসিকতাকে প্রতিফলিত করে। নীতি বিশ্লেষক হ্যারসন অ্যাকিন্সের তৈরি করা ওই প্রতিবেদনে ইউএসসিআইআরএফ-এর তরফে আরও অভিযোগ তোলা হয়েছে যে, বিজেপি ধর্মীয় পরীক্ষার মাধ্যমে নাগরিকত্ব দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে। যেখানে হিন্দুদের সব সুবিধা দেওয়া হবে। অন্যান্য ধর্মীয় সংখ্যালঘুরাও বেঁচে যাবেন। বাদ দেওয়া হবে শুধু মুসলিমদেরই।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only