বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০১৯

আদর্শ শিক্ষক থেকে বিধায়ক, ঘরের ছেলেকে পেয়ে খুশি করিমপুর



                        






শুভায়ুর রহমান, করিমপুরঃ
তিনি ছিলেন হাইস্কুল শিক্ষক। দীর্ঘদিন নাকাশিপাড়ার মুড়াগাছা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক পদ সামলেছেন। সহকর্মী থেকে শুরু করে ছাত্র ছাত্রী এমনকি এলাকার অভিভাবকদের কাছেও ছিলেন খুবই প্রিয় স্যার। নিজ হাতে পড়ুয়াদের ফর্ম ফিলাপ থেকে শুরু করে মিড ডে মিল সব কিছুই নিজে দেখভাল করতেন। ছাত্র ছাত্রীদের কোন সমস্যা হলে অভিযোগ শুনে, টেবিলে রাখা প্যাকেট থেকে লজেন্স বের করে হাতে ধরিয়ে হাসি মুখে সমাধানের চেষ্টা করতেন। স্কুল বিল্ডিং থেকে শুরু করে পঠন পাঠনে তিনি উন্নয়নে চেষ্টা করেছেন। এতসব গুণাবলির কারণের একবার রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে শিক্ষা রত্ন এবং রাস্ট্রপতির কাছে থেকে পুরস্কৃত হয়েছেন করিমপুরের নব নির্বাচিত তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক বিমলেন্দু সিংহ রায় বলে জানা গেছে। শুধু তাই নয় তিনি রচনা করেছেন কবি মদনমোহন তর্কালঙ্কার উপর জীবনী গ্রন্থ। তাছাড়া অত্যন্ত সুবক্তাও বটে।


করিমপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে বাজিমাত করতে প্রার্থী চিনতে ভুল করেননি তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর লোকসভা ভোটের চেয়ে করিমপুর কেন্দ্র থেকে মার্জিন বাড়িয়ে জয়লাভ করে রাজনীতিতে নতুন ভূমিকায় মুড়াগাছা হাইস্কুলের প্রাক্তন প্রধানশিক্ষক     বিমলেন্দু সিংহ রায়। তার এই জয়ে খুশি করিমপুর তো বটেই তেহট্টের মানুষ।
আদতে বিমলেন্দু সিংহ রায় পেশার খাতিরে কৃষ্ণনগরে থাকলেও তিনি করিমপুরের মুরুটিয়ার বালিয়াডাঙার বাসিন্দা। বিমলেন্দু বাবুর আত্মীয়স্বজন বালিয়াডাঙা গ্রামেই বসবাস করেন। তাই করিমপুর হাতের তালুর মতো চেনা। নিজের এলাকার উন্নয়নের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়তে চান তিনি। তিনি বলেন, এটা বড় স্বপ্ন। করিমপুরের মানুষের উন্নয়ন করবো।  '

তার জয় নিয়ে বেতাইয়ের বাসিন্দা তথা আরেকজন শিক্ষক শিক্ষারত্ন অখিল চন্দ্র সরকার জানান, আমি সঙ্গে সঙ্গে অভিনন্দন জানিয়েছি। আমি ভীষণ খুশি যে একজন আদর্শ শিক্ষককে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী করেছেন এবং মহুয়া মিত্র জিতিয়ে নিয়ে বিধান সভায় পাঠাচ্ছেন। এই ধরনের মানুষকে যদি দেশ গড়ার কাজে গুরুত্ব দেন, তবে দেশ সমৃদ্ধ হবে অবশ্যই।" বিমলেন্দু বাবুর সহধর্মিণী বিথীকা সিংহ রায়ও একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা। তিনি জানান, ও মানুষের সুখে দুখে থাকবে এটাই চাই। উন্নয়ন করবেন এটা জানি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে মায়ের চোখে দেখেন।' তৃণমূল প্রার্থীর জয়ের ব্যাপারে করিমপুরের মুরুটিয়ার একজন যুবকের কথায়, গ্রামের মানুষ। উনি স্যারের মতোন নিজেদের সমস্যার কথা সহজেই বলতে পারবো সেই আশা রাখি। খুশি আমরা গ্রামবাসী হিসাবে।' একই ভাবে আনন্দিত নাকাশিপাড়ার মুড়াগাছা এলাকা। মুড়াগাছা স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র দোয়াজ্জেন মন্ডলের কথায়, স্যারের ছাত্র হিসাবে খুবই গর্ববোধ করছি। স্যার স্কুলের উন্নয়ন করেছেন খুব। পরিকাঠামো থেকে শুরু করে শিক্ষার মানোন্নয়নে সমান দৃষ্টি দিতেন। আশা রাখি স্যার মানুষের কল্যাণে আরও এগিয়ে আসবেন। কাজ করার মানুষের পাশে থাকার সুযোগ এসেছে, তা তিনি সার্বিকভাবে নজর দেবেন। '

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only