সোমবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৯

'বুলবুল'-এর পর তাণ্ডব চালাতে আসবে 'পবন'!



পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক, দিল্লি: বুলবুলের তাণ্ডব শেষ হতে না হতেই সামনে আসছে আরও এক ঘূর্ণিঝড়ের নাম। সম্ভবত, এই ঝড়ের নাম হতে চলেছে 'পবন'। শ্রীলঙ্কা এই নামকরণ করেছে।

রবিবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে দুই বাংলা মিলিয়ে মোট ২০ জনের মৃত্যুর হয়েছে।থমকে গিয়েছে উপকূল সংলগ্ন এলাকার জনজীবন। বাসিন্দাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ফেরাতে তৎপর মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যথাসাধ্য চেষ্টার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কেন্দ্রও। এদিকে বাংলাদেশেও জোরকদমে বাসিন্দাদের নিজেদের ভিটে মাটিতে ফেরানো তৎপরতা শুরু হয়েছে।ইতিমধ্যে সোমবার থেকে সূর্যের মুখ দেখা গিয়েছে।

এবার ভারত মহাসাগর ও বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া ট্রপিক্যাল সাইক্লোনগুলির নাম দেওয়ার রীতি শুরু হয়েছি ২০০৪ সাল থেকে। বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা বিভিন্ন অঞ্চলের ওপর ভিত্তি করে আঞ্চলিক কমিটি গঠন করে। এই কমিটি সেই অঞ্চলের সদস্য দেশগুলি ঝড়ের বিভিন্ন নাম প্রস্তাব করে। ভারত মহাসাগরে হওয়া সমস্ত ঝড়ের ক্ষেত্রে নামকরণের দায়িত্ব এই ৮টি দেশের মধ্যে বর্তায়।

ভারত, বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, মায়ানমার, ওমান, পাকিস্তান, থাইল্যান্ডের পর এ শ্রীলঙ্কার পালা পরবর্তী সাইক্লোনের নামকরণ করার। সম্প্রতি হয়ে যাওয়া সাইক্লোনের 'বুলবুল' নামকরণ করে ছিল পাকিস্তান। আর এর পরের ঝড়টির নাম হতে চলেছে পবন। এটি শ্রীলঙ্কার প্রস্তাবিত নাম।জানা গিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ আগে থেকেই করা থাকে। একটি নির্দিষ্ট সময়ের সম্ভাব্য ঝড়গুলোর জন্য সদস্য দেশগুলো পূর্বেই বিভিন্ন নাম প্রস্তাব করে রাখে। যখন ঝড় সৃষ্টি হয় তখন ওই তালিকা থেকে নামগুলো ব্যবহার করা হয়।
জানা যায়, এই নামগুলো কখনই দ্বিতীয়বার ব্যবহার করা হয় না। 
এমনই কিছু ঝড়ের নাম এবং প্রস্তাবিত দেশের নাম দেওয়া হলো- ফণি (বাংলাদেশ), সিডর (ওমান), নার্গিস (পাকিস্তান), বিজলি (ভারত), আয়লা (মালদ্বীপ), রেশমি (শ্রীলঙ্কা), খাই-মুক (থাইল্যান্ড)।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only