শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯

ফের কবিতায় প্রতিবাদ জানালেন তৃণমূল নেত্রী



নৈহাটির সভায় মুখ্যমন্ত্রী-ছবি সন্দীপ সাহা

চিন্ময় ভট্টাচার্য 

তিনি প্রতিবাদী। প্রতিবাদ জানাতেই তিনি পথে নামেন, মিছিল করেন, সভা করেন। আবার প্রতিবাদ তাঁর কলমের ছোঁয়াতেও জেগে ওঠে। জেগে ওঠে তাঁর কবিতাতেও। অতীতে বারবার দেখা গিয়েছে, নোটবন্দি থেকে জিএসটি- নানা ইস্যুতে কলম ধরেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার তিনি ফের মানুষের অধিকারের দাবিকে সামনে রেখে কলম ধরলেন। তাঁর কলম গর্জে উঠল কেন্দ্রীয় সরকারের অগণতান্ত্রিক এবং অসাংবিধানিক সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসির বিরুদ্ধে। 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কবিতার নাম দিয়েছেন, 'অধিকার'। যে কবিতার শুরুটা তিনি করেছেন ঠিক এই ভাবে, 'আমি তো এ দেশটাকে চিনি না, আমি তো এইখানে জন্মাইনি, আমি জন্মেছি ভারতবর্ষে, বিভেদ করতে শিখিনি।' কবিতার শেষ লাইনগুলো এইরকম, 'ঐক্যবদ্ধ ভারত থাকুক/ বিভেদকারীদের চাই না, আমরা সবাই নাগরিক- সিএএ, এনআরসি মানবো না।' কালো আইন এনআরসির বিরুদ্ধে তৃণমূল সুপ্রিমোর কলম গর্জে ওঠা, এই প্রথম নয়। এর আগেও তিনি এই সর্বনাশা আইনের বিরুদ্ধে কবিতা লিখেছিলেন। যার শিরোনাম ছিল, 'নাগরিক'। সেই কবিতার ছত্রে ছত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষের অধিকারের দাবিতে গর্জে উঠেছিলেন।


শুধু তাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল সুপ্রিমো ও তাঁর অনুগামীরা নিজেদের নামের বদলে অথবা নামের সঙ্গে সেই কবিতা লেখার পর থেকেই 'নাগরিক' শব্দ ব্যবহার করছেন। এদিনও সোশ্যাল মিডিয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কবিতা প্রকাশিত হওয়ার পর তাঁর প্রতিবাদী ভূমিকাকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা। প্রশংসা করেছেন তাঁর কবিতার।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only