সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৯

ঝাড়খণ্ডে লিঞ্চিং বিরোধী আইন চালুর দাবি মুসলিম সংগঠনগুলির


নয়াদিল্লি, ৩০ ডিসেম্বর: ঝাড়খণ্ডে বিজেপি সরকারের বিদায় জানিয়ে গঠিত হয়ে নয়া সরকার। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোচ্চার নেতা হেমন্ত সোরেন। এবার সেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে মুসলিমদের তরফে আর্জি জানানো হল, লিঞ্চিং বিরোধী আইন ঝাড়খণ্ডে চালু করার জন্য। এর আগে বিজেপি সরকারের আমলে গোরক্ষকদের হাতে কমপক্ষে ২২জন নিহত হয়েছিল। 

শুধু তাই নয়, নিরীহ তবরেজ আনাসরির কাতর আর্জি সত্ত্বেও গোরক্ষকরা তাকে রেহাই দেয়নি। সেই ঘটনা নিয়ে দেশজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। তাই, ঝাড়খণ্ডে এবার যাতে লিঞ্চিং বিরোধী আইন চালু হয়, নতুন সরকারের কাছে সেই আবেদন রেখেছে দেশের মুসলিম সংগঠনগুলির সম্মিলিত সংস্থা অল ইন্ডিয়া মজলিশ-এ মুশাওয়ারাত। এই সংগঠনের প্রেসিডেন্ট নাভেদ হামিদ এ ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমের কাছে বলেছেন,  ‘পাথালগাদি আন্দোলনে অংশ নেওয়া সমাজকর্মীদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহী মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে। আমি মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি, দয়া করে বিধানসভার প্রথম অধিবেশনে লিঞ্চিং বিরোধী আইন পাস করা হয়।

উল্লেখ্য, গোরক্ষকদের হাতে তবরেজ আনসারির মৃত্যু এ বছরের প্রথম দিকে সংবাদ শিরোনামে এসেছিল। ঝাড়খণ্ডে ইতিমধ্যে ২২জনের পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটায় তা নিয়ে বিরোধী দলগুলি সোচ্চার হয়েছে। তবে, সেসময় ঝাড়খণ্ডে বিজেপি সরকার থাকায় গোরক্ষকদের বিরুদ্ধে তারা কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি। বরং বিজেপির বিরুদ্ধে গোরক্ষকদের লিঞ্চিং করার প্রচ্ছন্ন মদত মিলেছে বলে অভিযোগ। তাই ঝাড়খণ্ডে মুসলিম সংগঠনের লিঞ্চিং বিরোধী আইন চালু করার দাবি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only