শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

সরকার কথা না রাখলে কবর খুঁড়ে মৃতদেহ নিয়ে যাব

হাল ছাড়ছেন না উন্নাওয়ের নির্যাতিতার পরিবার। ন্যায়ের দাবিতে তাঁরা অনড়। নির্যাতিতার পরিবারের পক্ষ থেকে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে, সরকার দোষীদের মৃতু্যদণ্ডের সাজা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ব্যর্থ হলে তারা প্রয়োজনে কবর খুঁড়ে নির্যাতিতার মৃতদেহ তুলে লখনউ নিয়ে যাবে। শুধু তাই নয়– নিজেদের দাবিতে তারা কতটা অনড় তা বোঝাতে বুধবার নির্যাতিতার কবরের পাশে ধরনায় বসে তাঁর পরিবারের সদস্যরা। তার আগে সোমবার মৃতার পরিবারের সদস্যরা জেলা প্রশাসনকে কবরের উপর কংক্রিটের কাঠামো তৈরিতে প্রবল আপত্তি জানায় ও বাধা হয়। ফলে খালি হাতে ফিরে আসতে হয় প্রশাসনের অফিসারদের। পুলিশের সিনিয়র হাউজ অফিসার (এসএইচও) বিকাশ পাণ্ডে বলেন– জেলা প্রশাসন কবরস্থান চত্বরটি কংক্রিটের করার জন্য সোমবার গিয়েছিল। কিন্তু, মৃতার পরিবারের লোকরা সেখানে গিয়ে এর প্রতিবাদ জানায়। এরপরই যে ব্লক অফিসারকে বিষয়টির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল, তাঁকে তড়িঘড়ি নির্দেশ দেওয়া হয় কাজ বন্ধ করে দেওয়ার জন্য। রাজমিস্ত্রিদের ফিরে যেতে বলা হয়। যতটুকু কংক্রিটের কাজ হয়েছিল মৃতার পরিবারের লোকজন তা সরিয়ে দিয়ে জানিয়ে দেন, যতক্ষণ না তাঁদের দাবি পূরণ হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত তাঁরা সেখানে কোনও কংক্রিটের কাঠামো করতে দেবেন না। শুধু তাই নয়, নির্যাতিতা তরুণীর ছোট বোন হুমকি দিয়েছেন, দ্রুত বিচার না পেলে তিনি প্রকাশ্যে আত্মঘাতী হবেন। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গেও সাক্ষাতের দাবি জানিয়েছেন তিনি। ওই তরুণী বলেন, ‘আমাদের পরিবারের একজনকে চাকরি, বন্দুকের লাইসেন্স, বাড়ি ও অপরাধীদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার দাবি দ্রুত পূরণ না হলে আমরা কবর খুঁড়ে মৃতদেহ তুলে তা লখনউতে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে নিয়ে যাব।’ তরুণী আরও বলেন, ‘সরকার যদি অপরাধীদের মৃতু্যদণ্ড নিশ্চিত করতে না পারে তাহলে ওরা আমাদের সবাইকে মেরে এখানে কবর দিয়ে দিক।’ সাব-ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট দয়া শংকর পাঠক, সার্কেল অফিসার এ কে রাই ও রেভিনিউ অফিসার সুজিত কুমার তিওয়ারি ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু, তাতে কোনও কাজ হয়নি। উল্লেখ্য, উন্নাওকাণ্ডে পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেছিল। এবং পুলিশি এনকাউন্টারে তারা নিহত হয়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only