বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

গুজরাত দাঙ্গায় প্রধানমন্ত্রীকে ক্লিনচিট নানাবতী কমিশনের


২০০২ সালের গুজরাত দাঙ্গার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীকে ক্লিনচিট দিল নানাবতী-মেহতা কমিশন। মোদির নেতৃত্বাধীন তৎকালীন রাজ্য সরকারকেও ক্লিনচিট দেওয়া হয়। বুধবার গুজরাত বিধানসভায় এই কমিটির রিপোর্ট জমা পড়েছে। সেখানে স্পষ্ট বলা হয়েছে, গোধরা পরবর্তী দাঙ্গা পূর্বপরিকল্পিত ছিল না। দাঙ্গা থামাতে প্রশাসন যথাযাধ্য চেষ্টা করেছিল। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘ওই সাম্প্রদায়িক হিংসা চলাকালীন রাজ্যের কোনও মন্ত্রী এই ঘটনাকে উস্কে দিয়েছিলেন বা প্ররোচিত করেছিলেন এমন কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’

 রিপোর্টে অবশ্য পুলিশি ভূমিকা নিয়ে কিছু প্রশ্ন তোলা হয়েছে। বলা হয়েছে, কিছু এলাকায় জনসংখ্যার বিচারে পুলিশ কম থাকায় বা সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী না থাকায় জনরোষ দমনে তারা ব্যর্থ হয়। একইসঙ্গে যথাযথ ভূমিকা পালন না করার জন্য পুলিশের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়েছে রিপোর্টে। যদিও সমালোচকদের বক্তব্য, সরকারের তরফে নির্দেশ না থাকলে পুলিশ এভাবে নিষ্ক্রিয় থাকতে পারে না। যার ফলে নির্বিচারে মুসলিম গণহত্যা হয়েছিল। 
উল্লেখ্য, ২০০২ সালে গুজরাতে দাঙ্গার সময় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। অভিযোগ, দাঙ্গা মোকাবিলায় তিনি দ্রুত পদক্ষেপ করেননি। বরং, মুসলিমদের বিরুদ্ধে হিন্দুদের ‘আক্রোশ’ মেটানোর ‘সুযোগ’ করে দিয়েছিলেন। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only