শনিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

চিনিতেই চিন্তা! দাবি গবেষকদের


শীতকালে চাকফি খাওয়ার পরিমাণ অনেকটাই যায় বেড়ে। চাকফি মানেই চিনি। এভাবে চা কফির মাধ্যমে প্রতিদিন কতটা চিনি খাওয়া হয়ে যায়– তা জানেন কী। সমস্যা কিন্তু এই চিনিতেই মেডিক্যাল হাইপোথিসিস জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণার তথ্য হচ্ছে চিনি শুধু ওজন কিংবা পেটের মেদই নয়– ডেকে আনে বিষ]তাকেও।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যানসাসের গবেষকরা চিনি খাওয়ার পরে মানুষের শারীরবৃত্তীয় ও মনস্তাত্ত্বিক পরিবর্তনের বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে নতুন এই তথ্য তুলে ধরেন। 

চাকফির সঙ্গে তো বটেই– এর সঙ্গে শীতকালে বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়ার পরিমাণও যায় বেড়ে। এমনকি অতিরিক্ত চিনি খেলে দেখা দেয় অ্যালকোহলের মতো নেতিবাচক প্রভাব।

চিনি আমাদের শরীরে ড্রাগের মতো কাজ করে। মিষ্টি খাওয়ার কিছুক্ষণ পর মন ভালো থাকে– কিন্তু তারপর মস্তিষ্ক বিষ] হয়ে পড়ে। তাই চিনিকে যতটা সম্ভব খাদ্যতালিকা থেকে দূরে রাখতে হবে।

২০১৬ সালে ফার্মিংহাম হার্ট স্টাডির গবেষকরা ১ হাজার জনের উপর একটি গবেষণা করেন। তাতে দেখা যায়– যারা যত বেশি মিষ্টি খাবার খান– তাদের পেটের মেদ হওয়ার সম্ভবনা তত বেশি। পেটের এই মেদ হার্টের সমস্যা এবং ডায়াবেটিসের সমস্যার জন্য অনেকাংশেই দায়ী।

বাড়তি চিনি মানেই বাড়তি শর্করা যা দ্রুত পরিপাক হয়ে আপনার রক্তের মধ্যে মিশে গিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে শক্তি উৎপন্ন করতে সাহায্য করে। তবে শরীরের মেটাবলিজমের কারণে কিছুক্ষণ পরেই সেই শক্তি চলেও যায়। তাই চিনি খান ভেবেচিন্তে– নইলে বিপদে পড়বেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only