শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯

‘হাতের কাছেই পেট্রোল রাখুন, নির্দেশ পাওয়া মাত্রই সব কিছু জ্বালিয়ে দিন’


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: ‘হাতের কাছেই পেট্রোল রাখুন। নির্দেশ পাওয়া মাত্রই সব কিছু জ্বালিয়ে দিন।’ এমনই বিস্ফোরক এবং উস্কানিমূলক মন্তব্য করে বসলেন প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ মাঝি। যা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর সমালোচনা।

১৪ ডিসেম্বর এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ ওঠে। এর প্রতিবাদে ২৬ তারিখ নবরংপুরে ১২ ঘণ্টা বনধের ডাক দেয় ওড়িশা কংগ্রেস। ধর্মঘট চলাকালীন কংগ্রেস নেতা প্রদীপ মাঝি বিস্ফোরক উক্তি করে বসেন। বলেন, ‘হাতের কাছেই পেট্রোল রাখুন। নির্দেশ পাওয়া মাত্রই সব কিছু জ্বালিয়ে দিন।’ নেতার সেই বার্তার ভিডিও ক্লিপিং ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এসব বলেও অবশ্য কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই নেতার। উল্টে তিনি সাংবাদিকদের কাছে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় ধর্ষণ ও খুনের মতো ঘটনার ব্যবস্থা না নিলে, নেতাজি  সুভাষচন্দ্র বসুর নীতি গ্রহণ করব’। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আর নীরব থাকতে পারছি না। প্রথমে জওয়ানরা ধর্ষণ করে এক নাবালিকাকে। এবার নবরংপুরে নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুন। এটা বাড়াবাড়ি হচ্ছে’।

প্রাক্তন সাংসদের অভিযোগ, ঘটনার পর কেটে গেছে ১৩দিন। এখনও পুলিশ ময়নাতদন্তের রিপোর্টই দিতে পারেনি। চিকিৎসক, সরকার, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক কী করছে? গান্ধিগিরি ওড়িশার দুঃস্থ মেয়েদের ন্যায়বিচার দিতে পারছে না। তাই আমরা বাধ্য সুভাষ চন্দ্রের নীতি গ্রহণ করতে। ফোনে যা বলেছি, তারজন্য কোনও আক্ষেপ নেই। মা-বোনেদের সুরক্ষিত রাখার জন্য যদি হিংসার আশ্রয় নিতে হয়, তাতে আমরা পিছু হঠব না’।

নবরংপুরের বিজেডি সাংসদ রমেশ মাঝি অবশ্য প্রাক্তন সাংসদের বক্তব্যের বিরোধিতা করেছেন। তিনি বলেন, পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। খুব শীঘ্রই ময়নাতদন্তের রিপোর্টও হাতে আসবে। অন্যদিকে বিজেপি নেতা জয়রাম পাঙ্গির অভিযোগ, কংগ্রেস বিশৃঙ্খলা ছড়ানোর চেষ্টা করছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only