রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

ছেলের জন্মদিনে পথশিশুদের নিয়ে কেক কাটা থেকে শুর করে রক্তদানের আয়োজন গৃহবধূর!


দেবশ্রী মজুমদার
সুশান্ত মণ্ডল, কলু কর্মকার, উজ্জ্বল সেখ, সুভদ্রা মুখোপাধ্যায়, মানিক সেখ এবং আরও অনেকে। এদের একটাই পরিচয় এরা পথ শিশু। এরা জানে না এদের জন্মদিন কবে তবে আরিফের জন্মদিনে খাবার, ভালোবাসার উপহারে এরা খুব খুশি। নতুন বন্ধু হিসেবে পেয়েছে আরিফকে

কে এই আরিফ? সেটা জানার আগে জানতে হবে এক গৃহবধুর কথা  রামপুরহাট ১৬ নং ওয়ার্ডের  চাকলামাঠের বাসিন্দা গৃহবধূ ওয়াহিদা রহমান।

আগের বছরও বেশ বড় করেই ছেলের জন্মদিন পালন করেছেন। কিন্তু এবার একটু অন্যভাবে ছেলে আরিফের জন্মদিন পালনের ইচ্ছে প্রকাশ করেন ওই গৃহবধূ স্বামী  সহধর্মিনীর ইচ্ছেয় এক কথায় রাজি। গৃহবধূ বলেন, রামপুরহাট রেলওয়ে স্টেশনে পথশিশুদের দেখার পর, আমার মনে হয়েছিল, এই ছোট ছোট বাচ্চাদের নিয়ে একটু আনন্দে কাটালে কেমন হয়। মনের সেই ইচ্ছেটা স্বামীকে জানাতেই উনি আমার ইচ্ছে পূরণ করলেন। ওদের সাথে কেক কেটে তারপর খাওয়া দাওয়া করে বেশ কাটল। ওরাও খুব আনন্দ পেয়েছে। সেটা ওদের মুখ দেখে বুঝলাম। আমি খুব খুশি।

স্বামী তৃণমূল নেতা আবার মমতাময়ী মানবিক স্টলের কর্ণধার আব্দুর রেকিব। তাঁর স্টল থেকে দুঃস্থ মানুষদের বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব ছাড়াও শীত কালে বস্ত্র বিতরণ করা হয়। আব্দুর রেকিব বলেন, আমার স্ত্রী তো আমার কাছে নিজের জন্য কিছু চায় নি। যা চেয়েছে, তা আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি শুধু ওর সাথে রক্তদান শিবিরের আয়োজন যোগ করেছি। রামপুরহাট হাসপাতালে থ্যালাসেমিয়া রোগীদের জন্য রক্ত লাগে। অনেক শিশু এই রোগে আক্রান্ত। ৫০ জন রক্ত দান করেছেন। ভালোই লাগলো ছেলের জন্মদিনটা একটু অন্যরকম ভাবে হলো।   রামপুরহাট জে এল বিদ্যাভবনের নবম শ্রেণীর ছাত্র আরিফও নতুন বন্ধুদের পেয়ে খুব খুশি।  এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আশীষ বন্দ্যোপাধ্যায়, মহারাজ হংসানন্দ সহ সমাজের বিভিন্ন গুনী মানুষ।  রক্তদান শিবিরে নিজে রক্ত দান করেন আব্দুর রেকিব। পাড়ার কিছু আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন তাঁদের কাছে ছেলের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে উপহারের বদলে রক্তদানের আহ্বান জানান আব্দুর রেকিব। খাবারের মেনুতে ছিল

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only