রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

বেঙ্গালুরুতে পেঁয়াজের ডবল সেঞ্চুরি!


পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: বেঙ্গালুরুর বাজারে বল সেঞ্চুরি হাঁকাল পেঁয়াজ! সরকারি সূত্রে খবর, চাহিদার তুলনায় বাজারে যোগান কম। এরজেরেই এই মূল্যবৃদ্ধি। আর এই মূল্যবৃদ্ধির জেরে নাভিশ্বাস সাধারণের। এদিকে এই ঘটনার জেরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে মামলা।

কিছুতেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না পেঁয়াজের দামবৃদ্ধিকে। চড়চড়িয়ে প্রায় রোজই বাড়ছে এর দাম। সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, দেশে পেঁয়াজের বার্ষিক চাহিদা ১৫০ লাখ মেট্রিক টন। যেখানে কর্নাটকে পেঁয়াজ উৎপন্ন হচ্ছে ২০.১৯ লক্ষ মেট্রিক টন। ফসলের ক্ষতির দরুণ পেঁয়াজের প্রায় ৫০ শতাংশ নষ্ট হয়ে যায়। এমনকী ফসল কাটার পরও  তা নষ্ট হয়। ব্যাপক বৃষ্টিও ফসলের ক্ষতি করে। যেটুকু পড়ে থাকে, সেটাই নিয়ে আসা হয় বাজারে। নভেম্বরেও যেখানে কর্নাটকের বাজারে প্রতিদিন ৬০-৭০ কুইন্টাল পেঁয়াজ এসেছে, ডিসেম্বরে সেই যোগান এক ধাক্কায় কমেছে ৫০ শতাংশ। এই সংকট প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেছেন, রিটেলার ও হোলসেলার কারও কাছেই তেমন পেঁয়াজ মজুত নেই। আশ্চর্যজনক ঘটনা হল, কর্নাটকে পেঁয়াজ মজুত রাখার সেই সুবিধাও নেই। আর এই মূল্যবৃদ্ধির জেরে মেনু থেকে পেঁয়াজের পদ বাদ রাখতে বাধ্য হচ্ছেন আম আদমি।

এদিকে পেঁয়াজের দিনদিন রেকর্ড পরিমাণ মূল্যবৃদ্ধির জেরে কেন্দ্রীয় খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানের বিরুদ্ধে মুজাফফরপুরে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে মিথ্যা তথ্য পেশের জেরে। যে সমাজসেবী এই মামলা দায়ের করেছেন তিনি বলেন, পাসোয়ান পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসাবে কালোবাজারি ব্যবসাকে কাঠগড়ায় তুলেছেন। যদিও ফলনের ঘাটতিই এই মূল্যবৃদ্ধির আসল কারণ বলে দাবি অভিযোগকারির। মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ৪২০– ৫০৬ ও ৩৭৯ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only