শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

জয়ের পর ব্রেক্সিট নিয়ে জনগণকে কী বার্তা দিলেন বরিস? জানুন


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: এবার পাঁচ বছরের জন্য পাকাপাকি ভাবে ব্রিটেনের ক্ষমতা পেলেন বরিস।সরকার গঠনের জন্য ৩২৬ আসন চেয়ে ছিল বরিসের কনসারভেটিভরা। কিন্তু ফলাফলে দেখা গিয়েছে ৩৬৩ আসন পেয়েছে তাঁরা।

এই নির্বাচনে ৬৪৮ আসনের মধ্যে লেবার পার্টি পেয়েছে ২০৩টি আসন। স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি পেয়েছে ৪৮ আসন, লিবারেল ডেমোক্র্যাটস পেয়েছে ১১ আসন, ড্রেমোক্রেটিক ইউনিওনিস্ট পার্টি ৮ এবং অন্যান্য দল পেয়েছে ১৫ আসন।অন্যবারের তুলনায় ৪৭টি আসন বেশি পেয়েছে কনজারভেটিভরা। অন্য দিকে ৫৯টি আসন হারিয়েছে লেবার পার্টি। 

বিপুল জয়ের অধিকারি হয়েছে বরিস জনসন বলেছেন, আগামী মাসে ব্রিটেনকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের করে আনার আজ্ঞা বহন করছে এই জয়। ১৯৮৭ সালে মার্গারেট থ্যাচারের নেতৃত্বে নির্বাচনের পর থেকে এটাই হচ্ছে কনসারভেটিভদের সবচেয়ে বড় জয়।

ফলাফলে বিপুল পরিমাণ আসন পেতে শুরু করলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই তিনি সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ভোটাররা যে আস্থা রেখে ভোট দিয়েছেন তা পূরণ করার জন্য দিন-রাত পরিশ্রম করব। এই নির্বাচনে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে তার দল। আমাদের দেশের এটা নয়া সূচনা। মানুষ পরিবর্তন চায়। আমরা তাদের পিছিয়ে দিতে পারি না এবং আমাদের এটা করা উচিত নয়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বরিসের 'ক্যাজুয়েল' কথাবার্তাই ব্রিটেনের মানুষের মনজয় করেছে। ভোটের দিন কোনও ইন্টারভিউ দিতে চাননি বরিস।পোষ্যকে নিয়ে বের হতে দেখা গেলেও জয়-পরাজয় নিয়ে তেমন কোনও চিন্তার ভাঁজ তাঁর চোখে মুখে দেখা যায়নি।

অন্যদিকে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে লেবার পার্টি নির্বাচনে এতোটা খারাপ ফলাফল কখনো করেনি।এই ফলাফলে হতাশ হয়ে আগামী নির্বাচনে দলকে নেতৃত্ব না দেওয়ার ঘোষণা করেছেন বিরোধীদল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন। লেবার পার্টি উত্তর মিডল্যান্ড এবং ওয়েলসে তাদের আসন হারিয়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only