মঙ্গলবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

দলের সাংসদদের ‘সবক' দিলেন রাজনাথ সিং

সাংসদরা নিজের কাজ ঠিকমতো করছেন না। হাজির থাকছেন না সংসদ অধিবেশনেও। গোঁসা হয়েছিল খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। তাঁর বক্তব্যের দিনেও অর্ধেক বিজেপি সাংসদের আসন খালি লোকসভা, রাজ্যসভায়।তাই নির্দেশ এসেছিল খোদ প্রধানমন্ত্রী মোদির নিকট থেকে। কিন্তু, তাতেও ভ্রূক্ষেপ করেননি অনেক বিজেপি সাংসদ। প্রায় সময়ই সংসদের অধিবেশনে গরহাজির থাকছেন তাঁরা। তাই এবার দলের সাংসদদের ‘সবক' দিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।মঙ্গলবার দলীয় সাংসদদের আরও গুরুত্ব সহকারে নিজেদের কাজ, দায়িত্ব পালন করার 'শিক্ষা' দিলেন তিনি।বিজেপির সংসদীয় দলের সাপ্তাহিক বৈঠকেই সবার সামনে অনুপস্থিতির বিষয়ে সাংসদদের সতর্ক করেন রাজনাথ সিং। তিনি বলেন, সংসদে উপস্থিতির বিষয়ে শৃঙ্খলার অভাব নিয়ে একাধিকবার মুখ খুলেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদিজি। তারপরও সাংসদরা না শোধরানোয় প্রধানমন্ত্রী যে অত্যন্ত ক্ষুণ্ণ, সে বার্তা সাংসদদের কাছে পৌঁছে দেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

বিজেপি সাংসদদের গরহাজিরার প্রবণতা রুখতে গত জুলাইয়ে 'কড়া ওষুধ' দিয়েছিলেন মোদী। সাংসদদের প্রশ্ন করেন, তাঁদের লোকসভা এলাকায় মোদী বা অমিত শাহ জনসভায় যাবেন বলেও না গেলে কেমন লাগবে তাঁদের? তখন বিজেপি নেতারা ভেবেছিলেন, 'ডোজ' বেশ কড়া। 'রোগ' সেরে যাবে। কিন্তু তাতে যে কোনও প্রভাবই পড়েনি, শীতকালীন অধিবেশনে শুরু হতেই তা টের পান বিজেপি নেতারা।

বিজেপি সূত্রে খবর, শীতকালীন অধিবেশনেই নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল পাশ করাতে বদ্ধপরিকর সরকার। লোকসভায় বিলটি যখন উত্থাপন করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, তখন বিরোধীরা তুমুল হই-হট্টগোল করবে বলেই অনুমান বিজেপির। তাই বেশিরভাগ বিজেপি সাংসদদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলও যে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার সংক্রান্ত বিলের মতোই গুরুত্বপূর্ণ, সে কথা দলের সাংসদদের মনে করিয়ে দেন রাজনাথ। তিনি বলেন, আগামী কয়েকদিনে অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ উত্থাপন করা হবে। সেই সময় আপনাদের শুধু লোকসভায় উপস্থিত থাকতে হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only