রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

অবরোধ স্থল থেকে শাসক দল আক্রান্ত বীরভূমে


দেবশ্রী মজুমদার, নলহাটি, ১৪ ডিসেম্বরঃ এবার শাসক দল আক্রান্ত। এন আর সি ও ক্যাবের প্রতিবাদে জাতীয় সড়কে অবরোধ স্থল থেকে উন্মত্ত জনতা শাসকদলের সভা মঞ্চ ভাঙচুর করে মিছিল করে লোহাপুর রেল স্টেশনে ভাঙচুর, লুঠপাঠ, মারধোর ও অগ্নিসংযোগ ঘটায়।  কাঁটাগড়িয়া মোড়ে  টায়ার জ্বালিয়ে বেলা দুটো থেকে চলে অবরোধ। সাধারণ মানুষের অবস্থা নাজেহাল। অন্যদিকে, উন্মত্ত জনতা নলহাটির লোহাপুর স্টেশনে আগুন লাগিয়ে দেয়। দাউ দাউ করে জ্বলছে স্টেশন। চলে লুঠপাঠ, মারধোরের ঘটনা। লোহাপুর স্টেশনের বুকিং সুপারভাইজার শ্যামল সাউ বলেন, তিন দিনের ক্যাশ ৩৫ হাজার টাকা লুঠ করে নেয়। রেলের এ্যসেট বলে কিছু নেই। জানা গেছে, রেল লাইনেও ভাঙচুর চালিয়েছে। রেলকর্তৃপক্ষকে সব জানানো হয়েছে। তদন্ত হয়েছে।  অন্যদিকে, কাঁটাগড়িয়া মোড়ে  তৃণমূলের ঘোষিত সভা ছিল। সভা শুরু হতেই, সভা মঞ্চের সামনে উন্মত্ত জনতা জাতীয় সড়কের উপর টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ শুরু করে।  এই পরিস্থিতিতে তৃণমূল সভা বন্ধ করে দেয়। তারপর উন্মত্ত জনতা সভা মঞ্চে উঠে জেলা তৃণমূল সম্পাদককে ধ্বস্তাধ্বস্তি করে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়। মঞ্চ ভাঙচুর করে।  জেলা তৃণমূল সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব ভট্টাচার্য বলেন, আমাদের ঘোষিত সভা ছিল কাঁটাগড়িয়া মোড়ে। তার আগে জাতীয় সড়কের উপর টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ শুরু করে। সেখানে কিছু বহিরাগত লোক ঢুকে পড়ে। যার জেরে যা হয় তাই হয়েছে। তবে তেমন কিছু ঘটে নি।  পূর্ব রেলওয়ে জন সংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তীকে এব্যাপারে ফোন করা হলে কোন উত্তর পাওয়া যায় নি। অন্যদিকে, বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক অতনু চট্টোপাধ্যায় বলেন,  তৃণমূলের মিছিল থেকে উন্মত্ত জনতা মিছিল করে এগোতে থাকে। তারা কোটাসুর বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায় পুলিশের উপস্থিতিতে। অন্যদিকে, জেলা জুড়ে তৃণমূলের শান্তিপূর্ণ মিছিল চলে। রামপুরহাট, বোলপুর, সিউড়ি, নলহাটি সর্বত্র শাসকদল এন আর সি ও ক্যাবের বিরুদ্ধে শান্তিপুর্ণ মিছিল করে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only